তিন টাকায় ডিম পেতে তুলকালাম কান্ড। অবস্থা এমন হয়েছিল যে, শেষ পর্যন্ত পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি সামালানো গিয়েছে। তার আগে অবশ্য ঢাকার খামারবাড়ি এলাকায় দিনভর স্লোগান-বিক্ষোভে কিছুটা বিশৃঙ্খলাও তৈরি হয়েছিল।

আরও পড়ুন, তিন ঘণ্টার জন্য ডিমের দামে বিপুল ছাড় ঢাকায়

আরও পড়ুন, ফিরতে হবে শুনে আতঙ্কে নীল

বিশ্ব ডিম দিবস উপলক্ষে আয়োজিত ‘তিন টাকায় ডিম বিক্রি’র এই অনুষ্ঠানে স্লোগান শোনা গিয়েছে, ‘আর কোনও দাবি নাই, ডিম চাই-ডিম চাই।’ পরে অবশ্য পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশকে লাঠিচার্জ করতে হয়।

ডিম না পেয়ে বিক্ষোভ। —সংগৃহীত।

শুক্রবার বিশ্ব ডিম দিবস। বাংলাদেশ পোলট্রি ইন্ডাস্ট্রিজ সেন্ট্রাল কাউন্সিল (বিপিআইসিসি) ও প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর তিন টাকায় ডিম কেনার আয়োজন করে। তিন টাকায় ডিম কিনতে সকাল থেকে রাজধানীর এই এলাকায় ভিড় করেছিলেন নানা বয়সী, নানা শ্রেণি ও পেশার মানুষ। ঢাকার খামারবাড়ি কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন প্রাঙ্গণে তখন লোকারণ্য। ডিম নিতে কেউ এসেছিলেন বালতি, কেউ ডিমের খাঁচি কেউ বা কাগজের কার্টন নিয়ে। তবে বিশৃঙ্খলার জেরে গুটি কয়েকের কপালেই জুটেছে ডিম। ধাক্কাধাক্কিতে ভেঙে পড়ে ডিম বিতরণের অস্থায়ী মঞ্চও। এর পরই ডিম কিনতে না পেরে গ্রাহকরা বিক্ষোভ শুরু করে দেন।

গ্রাহকদের অভিযোগ, সকাল দশটা থেকে ডিম দেওয়ার কথা ছিল। তার কিছুটা আগেই ডিম বিক্রি শুরু হয়। সর্বোচ্চ ৯০টি করে ডিম দেওয়ার কথা থাকলেও মানুষের চাপ দেখে আয়োজকদের পক্ষ থেকে প্যাকেট করা হয় ২০টি করে। হুড়োহুড়ি আর ধাক্কাধাক্কিতে ডিম দেওয়া মিনিট দু-একের মধ্যেই বন্ধ হয়ে যায়। আয়োজকরা প্যান্ডেল থেকে ডিম দেওয়া বন্ধ করে দেন। অনেকে ডিমের ওপরে পড়ে যান। অনেকে অসুস্থও হয়ে পড়েছেন। 

ডিম দিবস উপলক্ষে সুলভ মূল্যে ডিম বিক্রির আয়োজক বিপিআইসিসির মিডিয়া উপদেষ্টা সাজ্জাদ হোসেন বলেন, ‘‘আসলে এত মানুষ এই আয়োজনে আসবে আমরা ভাবতে পারিনি।’’ আয়োজকদের পক্ষ থেকে পরে ঘোষণা করা হয়, ডিম দিবস উপলক্ষে তিন টাকায় ডিম বিক্রি নিয়ে মানুষের এত উত্সাহ কল্পনার বাইরে। শীঘ্রই ঢাকার বিভিন্ন জায়গায় এই দামে ডিম বিক্রি করা হবে।