বাংলাদেশে নাটোরের বড়াইগ্রামে সোমবার থেকে নিখোঁজ এক খ্রিস্টান ধর্মযাজক। এর আগে গত বছর ৫ জুন এই অঞ্চলেই সুনীল গোমেজ নামে এক খ্রিস্টান ব্যবসায়ীকে তাঁর দোকানের মধ্যে কুপিয়ে খুন করেছিল নব্য জেএমবি-র জঙ্গিরা। নিখোঁজ ধর্মযাজক ফাদার ওয়াল্টার উইলিয়াম রোজারিও সুনীলবাবুর প্রতিবেশী। স্থানীয় সেন্ট লুইস উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকও তিনি।

সোমবার নিজের বাড়ি থেকে স্কুলে আসার জন্য বের হন ফাদার রোজারিও। কিন্তু তিনি স্কুলে আসেননি। তার পরে আর কোনও খোঁজও মেলেনি তাঁর। পরিবার পুলিশে অভিযোগ জানানোর পরে তদন্ত শুরু হয়েছে।

খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের পক্ষে ফাদার সুব্রত জানান, সুনীল গোমেজকে খুনের পরে ফাদার রোজারিওর ফোনেও খুনের হুমকি দিয়ে বার্তা পাঠানো হয়েছিল। ফাদার সেই সময়ে পুলিশে ডায়েরিও করেন। তবে পুলিশ জানিয়েছে, জঙ্গি সংশ্রবের বিষয়ে এখনও কোনও প্রমাণ না-মিললেও সব দিক বিবেচনা করেই তাঁরা তদন্ত করছেন।

মঙ্গলবার রাতে ফাদারের এক ভাইয়ের মোবাইলে ও পরে তাঁর বাড়ির নম্বরে তিন লক্ষ টাকা মুক্তিপণ চেয়ে ফোন আসে। বড়াইগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ ও কয়েক জন পুলিশ সে সময়ে ফাদারের বাড়িতেই ছিলেন। যে জায়গায় পণের টাকা দিয়ে আসতে বলা হয়েছিল, সাদা পোশাকের পুলিশ সেখানে পৌঁছলেও কাউকে দেখতে পায়নি। পুলিশের ধারণা, তদন্তকে ভুল পথে চালনা করতে এই ‘ভুয়ো ফোন’টি করা হয়েছিল।