জিএসটি কমছে টুথপেস্ট, ডিওডরান্ট, শ্যাম্পু, শেভিং ক্রিম, আফটারশেভ লোশনের। কমছে চকোলেট, চিউইংগামের। জুতো পালিশের ক্রিমেরও। নিউট্রিশাস ড্রিঙ্কস সহ ১৭৮টি পণ্য সস্তা হচ্ছে। এত দিন ওই পণ্যগুলির ওপর জিএসটি ধার্য ছিল ২৮ শতাংশ। এ বার সেটা কমে হচ্ছে ১৮ শতাংশ।
পণ্য পরিষেবা কর (জিএসটি) নেটওয়ার্ক প্যানেলের প্রধান, বিহারের অর্থমন্ত্রী সুশীল মোদী শুক্রবার এই খবর দিয়ে জানিয়েছেন, জিএসটি’র কর-কাঠামো অনেকটাই বদলে ফেলা হয়েছে এ দিন জিএসটি কাউন্সিলের ২৩তম বৈঠকে। ২২৮টি পণ্যের মধ্যে মাত্র ৫০টির ক্ষেত্রে জিএসটি’র সর্বাধিক কর ২৮ শতাংশ ধার্য হয়েছে। বাকি ১৭৭টি পণ্যের ওপর জিএসটি ধার্য হয়েছে ৫, ১২ বা ১৮ শতাংশ হারে।
কর-কাঠামো সংশোধনের বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করতে এ দিন সব রাজ্যের অর্থমন্ত্রীদের নিয়ে গুয়াহাটিতে জিএসটি কাউন্সিলের বৈঠকে বসেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। সেখানেই বেশির ভাগ পণ্যের জিএসটি হার সংশোধনের জোরালো দাবি জানান অসমের অর্থমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা। এর আগে একই দাবি জানানো হয়েছিল বিভিন্ন বণিক সভার তরফেও।
জিএসটি কাউন্সিল সূত্রের খবর, এয়ার কন্ডিশন্ড রেস্তোরাঁগুলিতে যে খাবার পরিবেশন করা হয়, তার ওপর জিএসটি হার ১৮ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১২ শতাংশ করারও প্রস্তাব রয়েছে। তবে এ ব্যাপারে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে পৌঁছতে পারেনি জিএসটি কাউন্সিল। ব্যবসায়ীদের সুবিধার্থে ফি মাসে তিন বার করে আয়কর রিটার্ন ফাইলের প্রথা চালু করা যায় কি না, তা নিয়েও আলোচনা চলছে।
গত জুলাইয়ে জিএসটি গোটা দেশে আনুষ্ঠানিক ভাবে কার্যকর হওয়ার পর কর-কাঠামো অদলবদল করতে ফি মাসেই বৈঠকে বসেছেন কাউন্সিলের সদস্যরা। এর আগে ১০০টি পণ্যকে জিএসটি’র নিম্নতর হার ৫, ১২ বা ১৮ শতাংশে নিয়ে আসা হয়েছিল।