রাষ্ট্রায়ত্ত বেঙ্গল কেমিক্যালস অ্যান্ড ফার্মাসিউটিক্যালস (বিসিপিএল) বিক্রি নিয়ে কেন্দ্রের সিদ্ধান্ত কতটা যুক্তিসঙ্গত, আদালতে সেই প্রশ্ন তুললেন খোদ বিচারপতি।

বিসিপিএলের স্থাবর সম্পত্তির উদ্বৃত্ত অংশ বিক্রি করে দেওয়ার ব্যাপারে কেন্দ্র যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তাকে চ্যালেঞ্জ করে বিচারপতি দেবাংশু বসাকের আদালতে মামলা করেছে ওই সংস্থার শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়ন। মঙ্গলবার তার শুনানিতে কেন্দ্রের অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেলের উদ্দেশে ওই প্রশ্ন তোলেন বিচারপতি। তিনি একটি তুলনা টেনে বলেন, ‘‘দিল্লির এইমস হাসপাতাল চালিয়ে লাভ না হলে, কেন্দ্র কি তা বিক্রি করে দেবে?’’

এ প্রসঙ্গে সংস্থার কার্যনির্বাহী এমডি পি এম চন্দ্রাইয়ার সঙ্গে চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা যায়নি।

ইউনিয়নের পক্ষে আদালতে আইনজীবী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যের সওয়াল, দেশের প্রথম ওযুধ তৈরির কারখানায় এখনও কম দামে ভাল ওযুধ তৈরি হয়। কারখানাটি মাঝে লাভের মুখ না দেখলেও এখন মুনাফা করছে। এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্র ওই সিদ্ধান্ত নিতে পারে না। অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল কৌশিক চন্দের দাবি, ‘‘সংস্থা লাভের মুখ দেখছে না। সারা দেশে সরকারি-বেসরকারি সব সংস্থা যত ওযুধ তৈরি করে, তার ০.০৩ শতাংশ তৈরি হয় বেঙ্গল কেমিক্যালে। তা ছাড়া সংস্থা বন্ধ করা হচ্ছে না। উদ্বৃত্ত জমি বেচে বকেয়া মেটানোর পরে সংস্থার ৫০% শেয়ার হস্তান্তর করে পরিচালন ব্যবস্থায় বদল আনা হবে।’’ কৌশিকবাবু আরও জানান, কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তে আদালতের হস্তক্ষেপ করা উচিত নয়।