জলে চলার ১০,০০০ বিমান (সি-প্লেন), সমুদ্রে ভাসমান ক্রুজ জাহাজে আস্ত শহর ও রাস্তায় বৈদ্যুতিক গাড়ি। ভবিষ্যতের ভারতকে এ ভাবেই দেখতে চান সড়ক পরিবহণমন্ত্রী নিতিন গডকড়ী।

রবিবার তিনি বলেন, সারা দেশে ৩-৪ লক্ষ জলাশয়, ২,০০০-এর বেশি নদী-বন্দর, ২০০ ছোট-বন্দর ও ১২টি বৃহৎ বন্দর রয়েছে। ফলে জল-বিমান সহজেই এখানে চলতে পারে। আর তা চালু করা যেতে পারে ১০,০০০ বিমান দিয়েই। ইতিমধ্যেই এক ইঞ্জিনের
জল-বিমান চালানোর নিয়ম খতিয়ে দেখতে বিমানমন্ত্রী অশোক গজপতি রাজুকে আর্জি জানিয়েছেন তিনি।

গডকড়ীর দাবি, মাত্র এক ফুট জল থাকলেও, এই বিমান সেই জায়গায় নামতে পারে। রানওয়ে প্রয়োজন মাত্র ৩০০ মিটার। ফলে ভারতের মতো দেশে এর প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে। তিন মাসের মধ্যে বিভিন্ন দেশের সি-প্লেনের নিয়ম খতিয়ে দেখা হবে। প্রয়োজনে আকাশেও উড়তে পারবে এই জল-বিমান।

ক্রুজ পরিষেবা চালু নিয়েও কথা চলছে বলে মন্ত্রীর দাবি। সঙ্গে রয়েছে বৈদ্যুতিক গাড়ি চালুর পরিকল্পনাও। ১৬ লক্ষ কোটি টাকার সাগরমালা ও ৭ লক্ষ কোটির ভারতমালা প্রকল্পের হাত ধরে দেশে পরিকাঠামোর চেহারা বদলানো সম্ভব বলে মত গডকড়ীর।