বৃহস্পতিবারও বাড়ল সেনসেক্স। এ দিন তা থিতু হয় ২৬,২২১ অঙ্কে। বুধবারের তুলনায় যা ৬৬.১২ পয়েন্ট বেশি। এই নিয়ে টানা তিন দিন বাড়ল সূচক। এ দিন সকাল থেকেই দোলাচলে ছিল সেনসেক্স। এক সময় তা প্রায় ৩০০ পয়েন্ট বাড়লেও, শেষ পর্যন্ত লগ্নিকারীরা লাভের টাকা তোলার জন্য শেয়ার বিক্রি করায় তা কিছুটা নেমে আসে। মূলত জুলাই-সেপ্টেম্বর ত্রৈমাসিকে সংস্থাগুলির ভাল ফলের আশাই সেনসেক্স বাড়ার কারণ বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

পাশাপাশি, এ দিন শুরু থেকেই চাঙ্গা ছিল এশিয়ার বিভিন্ন দেশের বাজার। চিনের আর্থিক অবস্থা ধীরে ধীরে শোধরানোর ইঙ্গিতে সকালেই জাপান-সহ বিভিন্ন এশীয় দেশের বাজার বাড়তে থাকে। ইউরোপীয় অঞ্চলে উৎপাদন শিল্প সে রকম ভাল না-করা এবং সেখানে মূল্যবৃদ্ধির হার শূন্যের নীচে নেমে গেলেও, এ দিন খোলার পর বাড়ে ইউরোপের বাজারও।

ভারতের ক্ষেত্রে ভাল আর্থিক ফলাফলের আশায় বৃহস্পতিবার তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থাগুলির শেয়ারে উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধি দেখা গিয়েছে। মূলত টাটা কনসালট্যান্সি সার্ভিসেস এবং ইনফোসিসের শেয়ার দর বেড়েছে। যদিও এইচসিএল টেকনোলজিসের শেয়ার দর পড়েছে অনেকটাই। পাশাপাশি, গত কয়েক মাসে ডলারের সাপেক্ষে টাকার দাম পড়ার জেরে লুপিনের মতো ওষুধ সংস্থাগুলির মুনাফা বাড়বে বলে মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহল। যার প্রভাবে এ দিন বেড়েছে তাদের শেয়ারের দামও।