খুচরো মূল্যবৃদ্ধির হারে পতন। একই পথে পাইকারি মূল্যবৃদ্ধিও। শিল্পোৎপাদন বৃদ্ধির হারে শ্লথ গতি। এই তিনটি তথ্যকে পাশাপাশি রাখলে তা থেকে স্পষ্ট ইঙ্গিত হল সুদ ছাঁটাই। এটা ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের অগস্ট মাসের ঋণনীতিতেই ঘটতে পারে, এমনটা এক রকম ধরেই নিয়েছে শেয়ার বাজার এবং তাতেই লাগামছাড়া সূচক।

মাত্র ৩৩টি কাজের দিনের মধ্যে ৩২ হাজারে পৌঁছে গিয়েছে সেনসেক্স। ১০ হাজারের ঢিল ছোড়া দূরত্বে এখন নিফ্‌টি। স্বাভাবিক কারণেই শেয়ার এবং মিউচুয়াল ফান্ডের লগ্নিকারীরা বেজায় খুশি। এঁদের কাছে শ্রাবণ যেন ‘পৌষ মাস’!

অন্য দিকে সুদ আরও কমার আশঙ্কায় প্রমাদ গুনছেন কয়েক কোটি সুদ-নির্ভর মানুষ। সদ্য সুদ কমানো হয়েছে ডাকঘরে। অগস্টে যদি রিজার্ভ ব্যাঙ্ক সুদ ছাঁটাইয়ের পথে হাঁটে, তবে আরও এক দফা সুদ কমার সম্ভাবনা থাকবে ব্যাঙ্ক ও ডাকঘরে। অর্থাৎ সুদ ফের কমার আগেই ওই সব প্রকল্পে যত বড় মেয়াদে লগ্নি করে ফেলা যায়, ততই ভাল। যাঁরা ব্যাঙ্ক-ডাকঘরের বাইরে বেরোতে চান, তাঁরা বিকল্পের সন্ধান করুন এখনই। ফান্ড এবং শেয়ারে ঝুঁকির পাশাপাশি আছে বড় আয়ের হাতছানি। কিছু নিয়ম মেনে চললে এই ঝুঁকি এড়ানো যায় অনেকটাই।

উঠুক অথবা পড়ুক, বাজার জুড়ে থাকবে এখন টানটান উত্তেজনা। উত্থান-পতনের অনেকটাই নির্ভর করবে তিনটি বিষয়ের উপর:

• জিএসটি জমানায় কত দ্রুত পণ্য ও পরিষেবার বাজার স্বাভাবিক জায়গায় ফিরে আসে

• বর্ষা দেশের সর্বত্র কতটা জল ঢালে

• তৃতীয় ত্রৈমাসিক কোম্পানি ফলাফল

বর্তমান পরিস্থিতিতে অনেকেই বুঝতে পারছেন না, এই বাজারে ঠিক কী করা উচিত। বিভিন্ন মহলের ধারণা, বড় মেয়াদে বাজার উপরে উঠবে। অর্থাৎ ভাল শেয়ার হাতছাড়া করা ঠিক হবে না। ছোট মেয়াদে এতটা উঁচু বাজারে অবশ্য ছোটখাটো সংশোধনের সম্ভাবনা থাকবে। এই সংশোধন মানুষকে সুযোগ করে দেবে কিছুটা কম দামে ভাল শেয়ার কেনার। ভাল বাজারের সুযোগ নিতে বাজারে আসছে বেশ কয়েকটি নতুন শেয়ার ইস্যু বা আইপিও, মিউচুয়াল ফান্ডের নতুন প্রকল্প (এনএফও) এবং কয়েকটি আকর্ষণীয় বন্ড ইস্যু।

যাঁরা শেয়ারে স্বচ্ছন্দ্য বোধ করেন না, তাঁরা কিছু তহবিল বন্ডে লগ্নি করার কথা ভাবতে পারেন। এখানে সুদ পাওয়া যেতে পারে ৯.৫ শতাংশ পর্যন্ত। তবে রেটিং দেখে ইস্যুর মান যাচাই করে নিতে ভুলবেন না। আজ ১,০০০ কোটি টাকার বন্ড ইস্যু নিয়ে বাজারে আসছে শ্রেয়ী ইক্যুইপমেন্ট ফিনান্স কোম্পানি। কলকাতার এই কোম্পানির বন্ডের রেটিং ‘এএ+’। অর্থাৎ স্থিতিশীল বা ‘স্টেব্‌ল’। শেয়ার ইস্যুতে জীবন বিমা সংস্থা আই সি আই সি প্রু-এর সাফল্যের পরে এ বার বাজারে আসতে চলেছে একই গোষ্ঠীর সাধারণ বিমা সংস্থা আই সি আই সি আই লম্বার্ড-এর আইপিও। ইস্যুর অনুমোদনের জন্য এরা এরই মধ্যে কাগজপত্র জমা দিয়েছে সেবি-র দফতরে। মাত্র কয়েক মাস আগে ইস্যু আনা সরকারি সংস্থা হাডকো-র শেয়ারের দর এখন দ্বিগুণ। চড়া বাজারে অনেক দিন ঝিমিয়ে থাকা রিলায়্যান্স ইন্ডাস্ট্রিজ-এর শেয়ারের দামও প্রথম বারের জন্য ছাড়িয়েছে ১,৫০০ টাকা। এ দিকে ১০ টাকা মূল দামের শেয়ার বিভাজনের বিষয়টি বিবেচনা করে দেখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইয়েস ব্যাঙ্ক পরিচালন পর্ষদ।

শুরু হয়ে গিয়েছে ২০১৭-’১৮ আর্থিক বছরের প্রথম তিন মাসের কোম্পানি ফলাফল প্রকাশের পর্ব। মরসুমের গোড়াতেই টিসিএস হতাশাজনক ফল প্রকাশ করলেও তার উপর অনেকটাই মলম লাগিয়ে দিয়েছে ইনফোসিসের ফলাফল। এই কারণে তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থাগুলির শেয়ারে ধস নামেনি। শেয়ার ফেরানো বা বাই ব্যাকের পথে হাঁটতে চলেছে দেশের তৃতীয় বৃহত্তম তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা উইপ্রো। ভাল ফল প্রকাশ করেছে ইন্ডাসইন্ড ব্যাঙ্ক। উন্নতি দেখা গিয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার বার্ষিক ফলাফলে। ব্যাঙ্কের আশা, ২০১৭-’১৮ অর্থবর্ষে তারা লাভের খাতায় ফিরবে।

১৪ অগস্ট পর্যন্ত চলবে ফলাফল ঘোষণার পালা। তত দিন পর্যন্ত আন্দোলিত হবে শেয়ার বাজার। অর্থাৎ এই মেয়াদে সজাগ এবং সক্রিয় থাকতে হবে লগ্নিকারীদের।