ছ’টি ‘দুর্বল’ রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কে ৭,৫৭৭ কোটি টাকার মূলধন জোগানোর প্রস্তাবে বুধবার সিলমোহর দিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। আগামী ২০১৯ সাল পর্যন্ত এ ধরনের বিভিন্ন ব্যাঙ্কে ৭০ হাজার কোটি টাকার মূলধন জোগাতে মোদী সরকারের ইন্দ্রধনুষ প্রকল্পের আওতায় এই তহবিল জোগানো হবে। আর্থিক স্বাস্থ্য ফেরানোর জন্য রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়াই ব্যাঙ্কগুলিকে চিহ্নিত করেছে।

এই ছ’টি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের তালিকায় রয়েছে: ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া (মূলধনের অঙ্ক ২,২৫৭ কোটি), আইডিবিআই ব্যাঙ্ক (২,৭২৯ কোটি), ইউকো ব্যাঙ্ক (১,৩৭৫ কোটি), সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক (৩২৩ কোটি), ব্যাঙ্ক অব মহারাষ্ট্র (৬৫০ কোটি) এবং দেনা ব্যাঙ্ক (২৪৩ কোটি)।

এর মধ্যে কলকাতা ভিত্তিক ইউকো ব্যাঙ্কের পরিচালন পর্ষদ এ দিনই কেন্দ্রের হাতে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে শেয়ার ইস্যুর বিষয়ে সায় দিয়েছে। যার বিনিময়ে তাদের হাতে ওই ১,৩৭৫ কোটির মূলধন আসবে।

সেন্ট্রাল ব্যাঙ্কের মূলধন জোগান সংক্রান্ত কমিটিও ৩.৮৮ কোটি শেয়ারের প্রতিটি ৮৩.১৫ টাকায় কেন্দ্রকে ইস্যু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যার জেরে ব্যাঙ্কের হাতে আসবে ৩২৩ কোটি টাকার মূলধন।

এই ছ’টি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ককে কেন্দ্র আগেভাগে মূলধন জোগানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে, যাতে তাদের দৈনন্দিন কাজকর্ম ও ব্যবসা চালাতে অসুবিধা না হয়। সরকারি সূত্রের খবর, ২০১৫ সালে ঘোষিত ইন্দ্রধনুষ প্রকল্পে চার বছরে বিভিন্ন রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কে ৭০ হাজার কোটি মূলধন জোগানোর কথা কেন্দ্রের। আন্তর্জাতিক বাসেল-৩ বিধির শর্ত মানতে বাজার থেকে তাদের সংগ্রহ করতে হবে আরও ১.১ লক্ষ কোটি টাকা। গত সাড়ে তিন বছরে কেন্দ্র জুগিয়েছে ৫১,৮৫৮ কোটি। ফলে আগামী প্রায় দু’বছরে আরও ১৮,১৪২ কোটি টাকা মূলধন দিতে হবে কেন্দ্রকে।