আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে দেশে বিমার আওতায় আসা মানুষের সংখ্যা দ্বিগুণ করার লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করেছে সংশ্লিষ্ট নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ ইনশিওরেন্স রেগুলেটরি অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অথরিটি অব ইন্ডিয়া (আইআরডিএ)। শহরে বণিকসভা ইন্ডিয়ান চেম্বার অফ কমার্স আয়োজিত সভায় সম্প্রতি এ কথা জানান এসবিআই লাইফের এমডি এবং সিইও অরিজিৎ বসু।

এ দিকে এই প্রথম বিমা ব্যবসার কিছু ক্ষেত্রে জীবনবিমা নিগমকে যৌথ ভাবে বেসরকারি বিমা সংস্থাগুলি পিছনে ফেলে দিয়েছে বলে জানান বণিকসভার বিমা ও ব্যাঙ্কিং বিষয়ক বিশেষজ্ঞ কমিটির চেয়ারম্যান এবং এসবিআই লাইফের প্রাক্তন এমডি অতনু সেন। তিনি জানান, চলতি অর্থবর্ষের প্রথম দু’মাসে ব্যক্তিগত জীবনবিমা প্রকল্প বিক্রির ক্ষেত্রে সম্মিলিত ভাবে বেসরকারি বিমা সংস্থাগুলির ব্যবসা বেড়েছে ৫৫%, সেখানে জীবনবিমা নিগমের ৪৫%।

তবে এ পর্যন্ত দেশের জনসংখ্যার মাত্র ৩.২% মানুষকে জীবন বিমা ও সাধারণ বিমার আওতায় আনা সম্ভব হয়েছে। ২০৩০ সালের মধ্যে কমপক্ষে ৬.৫% মানুষকে আওতায় আনতে চান বিমা নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ। ওই লক্ষ্য পূরণে বিমা ব্যবসায় তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার বাড়ানো ও এজেন্টদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার উপর সংস্থাগুলিকে বিশেষ জোর দিতে পরামর্শ দেন সভায় উপস্থিত আইআরডিএ-র চিফ জেনারেল ম্যানেজার যজ্ঞপ্রিয়া ভরত। তিনি বলেন, এর পাশাপাশি বাজারে এমন বিমা প্রকল্পের সংখ্যা বাড়াতে হবে, যেগুলির প্রিমিয়াম মানুষের আর্থিক সামর্থ্যের মধ্যে থাকে।