প্ল্যাটফর্ম থেকে কিছুটা দূরে রেল লাইনের ধার থেকে পাথর ফেলার কাজ করছিলেন তাঁরা। কিছু বুঝে ওঠার আগে হঠাৎই তাঁদের উপরে হুড়মুড়িয়ে এসে পড়ে একটি লোকাল ট্রেন। ট্রেনের তলায় পড়েই মৃত্যু হল ওই দুই কর্মীর। বৃহস্পতিবার দুপুরে ঘটনাটি ঘটে লিলুয়া স্টেশনে। পুলিশ জানায়, মৃতদের নাম উত্তম মাঝি ও রাজু বাউল।

রেলের নিয়মানুযায়ী কোনও লাইনে কাজ চলার সময়ে সেই লাইনে কাজের জায়গার সামনে ও পিছনে কিছুটা দূরত্ব বজায় রেখে দু’জনের পাহারা দেওয়ার কথা। ট্রেন এলে তাঁরা কর্মীদের সতর্ক করতে লাল পতাকা নেড়ে বাঁশি বাজান। সঙ্কেত পেলে কর্মীরা কাজ লাইন থেকে সরে দাঁড়ান। এ দিন লিলুয়ায় ওই সব নিয়ম মানা হয়েছিল কি না, খতিয়ে দেখবে রেল।

রেল পুলিশ সূত্রে খবর, দুপুর পৌনে ১টা নাগাদ পূর্ব রেলের লিলুয়া স্টেশনের কেবিনের কাছে লাইনে রক্ষণাবেক্ষনের কাজ করছিলেন কয়েকজন কর্মী। তাঁদের মধ্যেই ছিলেন উত্তম ও রাজু। রেলের দাবি, ওই কর্মীরা রেলের নন, সকলেই ঠিকাদারের অধীনে কাজ করেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ওই সময়ে একটি ডাউন লোকাল হাওড়ার দিকে যাচ্ছিল। তাতেই ধাক্কা খান ওই দু’জন। খবর পেয়ে বেলুড় জিআরপি-র কর্মীরা গিয়ে মৃতদেহ দু’টি উদ্ধার করেন।

রেলের দাবি, লোকাল ট্রেনটি হর্ন বাজিয়েই অন্য লাইনে যাচ্ছিল। কিন্তু কাজ করতে গিয়ে অন্যমনস্ক হয়ে পড়ায় খেয়ালই করেননি তাঁরা। যেখানে দুর্ঘটনা ঘটেছে, সেখান দিয়ে অনেক লাইন গিয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে রেল পুলিশের অনুমান, ট্রেনের হর্ন শুনে কর্মীরা হয়তো ভেবেছিলেন, ট্রেনটি যাবে অন্য লাইন দিয়ে। কিন্তু তাঁরা যে লাইনে দাঁড়িয়ে কাজ করছিলেন, আচমকাই সে লাইনেই চলে আসে ট্রেনটি। পূর্ব রেলের কর্তারা জানিয়েছেন, তদন্তের পরে রেলের নিয়ম মেনেই ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে।