ব্যবসার কাজের জন্য ভরসা করে একজনকে ১০০ টাকার চেক দিয়েছিলেন বেড়াচাঁপার ওষুধ ব্যবসায়ী আব্দুল মালেক বিশ্বাস। কিন্তু ফোনে মেসেজ এল, তাঁর অ্যাকাউন্ট থেকে তোলা হয়েছে ৯০ হাজার টাকা।

সঙ্গে সঙ্গে পুলিশের কাছে টাকা তছরুপের অভিযোগ জানান আব্দুল। ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে, আদতে কারসাজি ম্যাজিক কালির। তার জেরেই এমন জালিয়াতি। তবে ঘটনায় কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, দিন পাঁচেক আগে আব্দুলের কাছে ব্যবসা সংক্রান্ত কাজে এসেছিলেন তিন যুবক। তাঁরা নিজেদের একটি সংস্থার লোক বলে দাবি করেন। বেড়াচাঁপা বাদুড়িয়া রাস্তার মোড়ে আব্দুলের বেশ কয়েকটি ফাঁকা ঘর রয়েছে। ওই যুবকরা ওই ঘরগুলো সরকারি ব্যাঙ্ককে ভাড়া দেওয়ার প্রস্তাব দেন বলে অভিযোগ।

আব্দুলের অভিযোগ, ‘‘ওরা আমাকে ১০০ টাকার চেক দিতে বলে। আর জানায় ওদের কোম্পানি এই কাজের জন্য ১০০ টাকা দেবে। ওরা চেক লেখার সময় একটি পেন আমাকে দেয়। আমি সেই পেনেই টাকাটা লিখেছিলাম।’’ পরের দিনই আব্দুলের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে ৯০ হাজার টাকা তোলা হয় বলে অভিযোগ।

উত্তর ২৪ পরগনা জেলা জুড়ে এই ধরণের চক্রের খপ্পরে পড়েছেন বেশ কিছু মানুষ। জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘অভিযোগ পেয়েছি। অভিযুক্তদের ধরতে তল্লাশি চলছে।’’