কুলপির জামতলা হাসপাতাল মোড় থেকে ১১৭ নম্বর জাতীয় সড়কের নিশ্চিন্তপুর মোড় পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ৫ কিলোমিটার রাস্তার উপরে পিচ উঠে গিয়ে বড় বড় গর্ত তৈরি হয়েছে। এর ফলে প্রায়শই ঘটছে দুর্ঘটনা। সম্প্রতি মোটরভ্যানে যাওয়ার সময়ে এক প্রসূতির প্রসবও হয়ে যায় রাস্তায়।

রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করেন বেলপুকুর, বাবুরমহল পঞ্চায়েতের বহু মানুষ। স্থানীয় তিনটি হাইস্কুল, কাকদ্বীপ, ডায়মন্ড হারবার কলেজের পড়ুয়াদেরও ভরসা ওই রাস্তা। কিন্তু ওই রাস্তা দিয়ে ছেলেমেয়েদের স্কুলে পাঠিয়ে নিশ্চিন্তে থাকতে পারেন না অভিভাবকেরা। গা়ড়ি নিয়ে চালকেরা সমস্যা পড়েন। একে তো দুর্ঘটনার আশঙ্কা। তার উপরে গাড়ির যন্ত্রাংশ নষ্ট হওয়ায় খরচ বাড়ে। কয়েক বছর ধরে রাস্তার এ হেন দশা হওয়া সত্ত্বেও প্রশাসন কোনও সুষ্ঠু ব্যবস্থা নিচ্ছে না বলে অভিযোগ স্থানীয় মানুষজনের। আলোর ব্যবস্থা না থাকায় সন্ধ্যার পরে সমস্যা আরও বাড়ে। ঢোলাহাট প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রাজীব দলুই জানালেন, রাস্তাটি দীর্ঘ দিন সংস্কার না হওয়ায় প্রতিনিয়ত ছোটখাটো দুর্ঘটনা ঘটছে। বিষয়টি একাধিকবার পঞ্চায়েত থেকে ব্লক প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। বিডিও রাজীব সেন বলেন, ‘‘জেলা পরিষদের ওই রাস্তাটি সংস্কারের জন্য সাংসদ বা বিধায়ক তহবিল থেকে অর্থ বরাদ্দ হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’’