মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে এবার ডুমুরজলা স্টেডিয়াম ঘিরে স্পোর্টস সিটি তৈরির দায়িত্ব পাচ্ছে হাওড়া পুরসভা। মঙ্গলবার উন্নয়ন ভবনের একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে প্রাথমিক ভাবে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন দফতর। ঠিক হয়েছে, প্রায় এক হাজার কোটি টাকার এই প্রকল্পটির পরিকল্পনা করছে হিডকো। রূপায়ণের দায়িত্বে থাকবে হাওড়া পুরসভা।

পুর ও নগরোন্নয়ন দফতর সূত্রের খবর, প্রাথমিক ভাবে সিদ্ধান্ত হয়েছে যে, প্রকল্পটির পরিকল্পনা করবে হিডকো। সেই পরিকল্পনার রূপায়ণ করবে হাওড়া পুরসভা। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে ইতিমধ্যেই ১০ হাজার আসনের ইন্ডোর স্টেডিয়াম তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যেই কাজ শেষ হওয়ার কথা। পাশাপাশি এই স্টেডিয়াম থেকে এক-দেড় কিলোমিটার দূরেই তৈরি হচ্ছে আন্তর্জাতিক মানের সুইমিং পুল। সূত্রের খবর, বৈঠকে ঠিক হয়েছে, ওই ইন্ডোর স্টেডিয়ামের পাশেই তৈরি হবে ৫০ হাজার আসনের একটি আন্তর্জাতিক মানের স্টেডিয়াম। তা  ছাড়াও আরও কয়েকটি জায়গায় তৈরি হবে হকি, ভলিবল খেলার স্টেডিয়াম। তৈরি করা হবে সুইমিং পুল, ক্রিকেট খেলার জায়গা। 

ওই স্টেডিয়ামের আশপাশে তৈরি হবে হাই ইনকাম গ্রুপ ও লো ইনকাম গ্রুপের জন্য আবাসন। হাওড়া পুরসভার পক্ষ থেকে ওই বৈঠকে জানানো হয়েছে, দালালপুকুর থেকে যে রাস্তাটি স্টেডিয়াম পর্যন্ত তৈরি হবে, তার আশপাশে প্রচুর জায়গা রয়েছে আবাসন তৈরি করার মতো।

পুর ও নগরোন্নয়ন দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, তিন বছর আগে রাজ্যের ৬টি জায়গায় ‘থিম সিটি’ তৈরির পরিকল্পনা করেছিল রাজ্য সরকার। ডাবগ্রাম, বোলপুর, আসানসোল, কল্যাণী, ডুমুরজলা ও বারুইপুরকে বেছে নেওয়া হয় এ কাজের জন্য। প্রতিটি শহরের জন্য একলপ্তে রয়েছে ৫০ একর জমি। বর্তমানে হাওড়ার যে জায়গায় ডুমুরজলা স্টেডিয়াম রয়েছে সেই জমির পরিমাপ প্রায় ৫৪ একর। এই জমিকে ঘিরে স্পোর্টস হাব তৈরির পরিকল্পনা দীর্ঘ কয়েক দশকের। বাম আমলে সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হয়নি। রাজ্যে তৃণমূল ক্ষমতায় আসার পরে এই স্টেডিয়ামকে ঘিরে আরও একটি প্রকল্প তৈরি করে জমির মালিক, হাওড়া ইমপ্রুভমেন্ট ট্রাস্ট বা এইচআইটি। কিন্তু সেটিও ব্যর্থ হয়।

এর পরে ২০১৫ সালে ‘থিম সিটি’ তৈরির লক্ষে ডুমুরজলার ওই জমিটি হিডকোর হাতে তুলে দেয় রাজ্য সরকার। নির্মাণ শিল্পপতিদের আহ্বান জানিয়ে দরপত্রের আবেদন করতে বলা হয়। কিন্তু দফায় দফায় সেই দরপত্র জমা দেওয়ার তারিখ পিছোলেও, একলপ্তে বড় জমি নেওয়ার ঝুঁকি নিতে চায়নি নির্মাণ শিল্পমহল। তাই শেষ পর্যন্ত ‘থিম সিটি’ প্রকল্প মুখ থুবড়ে পড়ে। মুখ্যমন্ত্রী সম্প্রতি হাওড়া পুরসভার মেয়র রথীন চক্রবর্তীকে নির্দেশ দেন, ডুমুরজলার চার পাশের সৌন্দর্যায়নের পাশাপাশি ইন্ডোর স্টেডিয়ামটিকে আন্তর্জাতিক মানের খেলার উপযুক্ত করে গড়তে। যুদ্ধকালীন তৎপরতায় এই দু’টি প্রকল্পের কাজ শুরু হওয়ার পরেই, মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে মঙ্গলবার উন্নয়ন ভবনে একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক ডাকেন রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন হাওড়ার মেয়র-সহ হিডকোর চেয়ারম্যান দেবাশিস সেন, পুর ও নগররোন্নয়ন দফতর এবং কেএমডিএ-র কর্তারা।

মেয়র রথীন চক্রবর্তী বলেন, ‘‘ডুমুরজলায় ‘স্পোর্টস সিটি’ তৈরি করার সমস্ত পরিকাঠামো রয়েছে। নিকাশি, রাস্তাঘাট, সবুজ সবই মজুত। দায়িত্ব পেলেই কাজ শুরু করব।’’

পুরসভা সূত্রে জানা গিয়েছে, আজ শুক্রবার ডুমুরজলা স্টেডিয়ামে জমি জরিপের কাজ শুরু করবে হিডকো।