নির্দেশটা নতুন নয়। কিন্তু সে নির্দেশকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে দলের সেজ, মেজ নেতারা যে যাঁর নিজের মতো করে ফ্লেক্স, পোস্টার, ব্যানারে নিজেদের ছবি দিয়ে প্রচার করতেন নানা বিষয়। জেলা জুড়ে সেই ছবির নমুনাও নেহাত কম নয়।

এ বারে সেই ছবি সরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ এল রাজ্য থেকে। নির্দেশ পাওয়ার পরে রবিবার দলের বর্ধিত সভায় মুর্শিদাবাদের জেলা তৃণমূলের সভাপতি সুব্রত সাহা বিষয়টি জানান। এ দিন বহরমপুরের গ্র্যান্ট হলে দলের বর্ধিত সভা ছিল। সেখানে সুব্রত সাহা বলেন, “দল থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, দলীয় কর্মসূচিতে দলনেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় ছাড়াও অন্য কারও ছবি রাখা যাবে না। দলনেত্রী ছাড়া যাঁদের ছবি ব্যানার, পোস্টার লাগানো আছে তা আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে খুলে ফেলুন।”

এ দিন দলীয় এক নেতার উদ্দেশে সুব্রতবাবু বলেন, “আপনারা আমার ছবি দিয়ে ব্যানার লাগিয়েছেন। সেটা খুলে ফেলুন। না হলে আমি নিজে গিয়ে খুলে দেব।” সাংবাদিক বৈঠকে সুব্রতবাবু বলেন, “দলের জেলার নেতারা নিজেরাই নিজেদের ছবি দেওয়া পোস্টার ব্যানার খোলার ব্যবস্থা করবেন।”

এ দিনের সভাতে জেলা মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি তথা জেলা পরিষদের সহকারি সভাধিপতি শাহনাজ বেগম অভিযোগ তোলেন, ‘‘জেলার বেশ কিছু ব্লক সভাপতি আছেন যাঁরা মহিলা সংগঠনকে গুরুত্ব দেন না। এমনকী মহিলা সংগঠনের বিরোধিতা করেন। এর পরেও এমনটা চলতে থাকলে জেলা সভাপতির পাশাপাশি দলনেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রীকেও জানাব।’’ এ ব্যাপারে সুব্রত সাহা অবশ্য বলছেন, “এটা শাহনাজের অভিযোগ নয়, অভিমান। মহিলা সংগঠনের পাশাপাশি সব শাখা সংগঠনকে নিয়ে আমি শীঘ্র আলোচনায় বসব।’’