আরও আঁটোসাঁটো হতে চলেছে বিশ্বভারতীর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। শ্রীনিকেতন সংলগ্ন অঞ্চল, আনন্দ পাঠশালা, সন্তোষ পাঠশালায় বসছে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সিসি ক্যামেরা। বিশ্বভারতী সূত্রে জানা গিয়েছে, বেশ কয়েক বছর ধরেই এই প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। আশ্রম সংলগ্ন কিছু এলাকায় ইতিমধ্যেই সিসিটিভি বসেছে। এ বার সিসিটিভি বসছে শ্রীনিকেতন ছাত্রীনিবাসের গেট, রতনকুঠি সহ আরও কিছু জায়গায়। তবে এতে কোনও ভাবেই ছাত্রীদের হস্টেলের গোপনীয়তা নষ্ট হবে না বলে দাবি বিশ্বভারতীর। সিসিটিভি নজর রাখবে শুধু রাস্তাতে।

ছাত্রীনিবাসের কাছেই যেহেতু বিডিও অফিস, তাই দিনভর বাইরের অনেক মানুষ ওই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করেন। কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতেই এই উদ্যোগ বিশ্বভারতীর। সিসি ক্যামেরা বসবে বাচ্চাদের বিদ্যালয় আনন্দ পাঠশালা ও সন্তোষ পাঠশালার গেটেও। অনেক বাচ্চাকে অভিভাবকরা দিতে আসেন ঠিকই। কিন্তু, কিছু বাচ্চা বিভিন্ন যানবাহনে আসে। যদি কোনও সমস্যা হয়, তা হলে সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখেও অনেকটা সমাধান করা সম্ভব হবে। নজরদারি ক্যামেরা বসানোর ক্ষেত্রে রাজ্য পুলিশ, প্রশাসনের সঙ্গেও আলোচনা করেছে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ।

সিসি ক্যামেরাকে আধুনিক বলা কেন, তার ব্যাখ্যাও দিয়েছে বিশ্বভারতী। এই ক্যামেরার নির্দিষ্ট জায়গায় বসে ফুটেজ দেখা তো যাবেই, সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনে নিজের ফোনেও যে কোনও জায়গা থেকে ফুটেজ দেখতে পারবেন। ইচ্ছে করলে যে কোনও সময়। বিশ্বভারতীর মুখ্য নিরাপত্তা আধিকারিক সুপ্রিয় গঙ্গোপাধ্যায় জানান, ছাত্রীদের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখেই এই ব্যবস্থা। রাস্তার পথচারী, যানবাহনের উপর নজর রাখবে ক্যামেরা।