নোট বাতিলের প্রতিবাদে কংগ্রেসের ডাকা আন্দোলনে সামিল হচ্ছেন সিপিএম নেতারাও। দার্জিলিং জেলা কংগ্রেস এবং আইএনটিইউসি কাল, মঙ্গলবার শিলিগুড়িতে ‘নকল সংসদ’ বসিয়ে আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। জংশনের শ্রমিক ভবনের নকল সংসদে কংগ্রেসের নেতানেত্রী, বিধায়কেরা ছাড়াও সিপিএম নেতৃত্ব উপস্থিত থাকবেন বলে রবিবার দুপুরে কংগ্রেসের তরফে জানানো হয়েছে। দলের নেতারা জানিয়েছেন, নকল সংসদে শাসক ও বিরোধীরা বিভিন্ন ভূমিকায় থাকবে। সাংসদ বক্তা হিসেবে থাকবেন একাধিক অরাজনৈতিক ব্যক্তিত্বও। সেখানেই সিপিএম সাংসদদের ভূমিকায় থাকতে বাম নেতাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। ওঁরা আসবেনও জানিয়েছেন।

জেলা কংগ্রেস সভাপতি তথা বিধায়ক শঙ্কর মালাকার বলেন, ‘‘সংসদ থেকে কেন্দ্রীয় সরকার তথা প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে প্রস্তাব পাশ করানো হবে। স্পিকারের মাধ্যমে তা রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানো হবে। সঙ্গে সঙ্গে আমরা আগামী তিন

মাসের আন্দোলনের ঘোষণাও করব।’’ আইএনটিইউসির জেলা নেতা অলোক চক্রবর্তী জানান, মেয়র অশোক ভট্টাচার্য, জীবেশ সরকারদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। বামেদের প্রতিনিধি দল আসবে বলে তাঁরা জানিয়েছেন। বিজেপির তো প্রশ্নই নেই। তবে প্রধানমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী, সংসদীয় বিষয়ক মন্ত্রী, বিরোধী দলনেতা, রাহুল গাঁধীর ভূমিকায় বিভিন্ন নেতারা থাকবেন। ‘‘তৃণমূল নেতারা আসবেন না তা আমরা জানি। তবে বিজেপি বিরোধী আন্দোলনে যাঁরা থাকতে চান, তাঁদের সকলকে আমরা স্বাগত জানাচ্ছি’’, বলেন তিনি।

অশোকবাবু বলেন, ‘‘আমার আগের ঠিক করা কিছু কাজ থাকায় যেতে পারব না। তবে আমাদের প্রতিনিধি দল যাবে।’’ এ দিন দুপুরে প্রদেশ কংগ্রেসের অন্যতম সম্পাদক সুবীন ভৌমিক, জীবন মজুমদারেরা নকল সংসদ ভবনের কাজ খতিয়ে দেখেন। সংসদের স্পিকার হিসেবে প্রাক্তন মেয়র গঙ্গোত্রী দত্ত থাকবেন। সকাল ১১টা থেকে বিকাল ৪টে অবধি নকল সংসদটি চলবে।