ঝড়ের সময় আগুন ছড়িয়ে ভস্মীভূত হয়ে গেল ৫০টি বাড়ি। রতুয়া ১ ব্লকের মহানন্দাটোলা পঞ্চায়েতের গোবিন্দপুরে শুক্রবার রাতের ঘটনা। বেহাল রাস্তার জন্য পৌঁছতে পারেনি দমকল। বাসিন্দারা শ্যালো পাম্পসেট চালিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন।

বিদ্যুতের তার থেকে শর্ট সার্কিট হয়ে ওই আগুন লাগে বলে প্রাথমিক সন্দেহ প্রশাসনের। অগ্নিকাণ্ডে ঘরবাড়ির সঙ্গে মজুত ধান, চাল সবই পুড়ে গিয়েছে। মারা গিয়েছে ৩০টিরও বেশি গবাদি পশু। পরে গ্রামবাসীরা ট্রাক্টরে করে দমকলের একটি পাম্পসেট এলাকায় নিয়ে যায়।

শুক্রবার রাত ১১টা নাগাদ চাঁচল মহকুমাজুড়ে হালকা ঝড়ের সঙ্গে বৃষ্টি শুরু হয়। তার কিছু ক্ষণের মধ্যেই হবিবুর রহমান নামে এক বাসিন্দার বাড়িতে আগুন লেগে যায় বলে দাবি প্রত্যক্ষদর্শীদের। নিমেষে ছড়িয়ে পড়ে আগুন। বেহাল রাস্তার জন্য দমকল ঢুকতে না পারায় শনিবার সকালে প্রশাসনের কর্তাদের সামনেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন বাসিন্দারা। স্থানীয় বাসিন্দা ফারুক আজম, জিয়াউর রহমানদের অভিযোগ, ‘‘রাস্তার জন্য একদশক ধরে দাবি জানিয়ে আসছি। কোনও কাজ হয়নি।’’ দমকল পৌঁছতে পারলে ক্ষয়ক্ষতি অনেক কম হতো বলে তাঁদের আশা।

দুর্গতদের ত্রাণের ত্রিপল, চাল, পোশাক, মশারি দেওয়া হয়েছে বলে প্রশাসন জানিয়েছে। রতুয়া-১ ব্লকের বিডিও বিশ্বনাথ চক্রবর্তী বলেন, ‘‘শর্ট সার্কিট হয়ে না কি অন্য ভাবে আগুন লেগেছে তা স্পষ্ট নয়।’’ রাস্তার সমস্যাও গুরুত্ব দিয়ে দেখা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।