প্রচারের শেষ লগ্নে ধূপগুড়িতে এসে বৃষ্টি মাথায় নিয়ে রোড শো করলেন বিজেপি নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়৷ ধূপগুড়ি পুরসভার বিদায়ী তৃণমূল বোর্ডের বিরুদ্ধে দূর্নীতি নিয়ে সরব হন তিনি৷ লকেটকে একবার দেখতে বৃষ্টি মাথায় নিয়েই রাস্তার দু’ধারে অনেক মানুষ ভিড় জমান৷

এ দিন বিকাল পাঁচটা নাগাদ ধূপগুড়িতে পৌঁছোনোর কথা ছিল বিজেপির মহিলা মোর্চার সভানেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়ের৷ দলের এই তারকা নেত্রীকে অন্তত একবার সামনে থেকে দেখতে অনেক আগে থেকেই মিলপাড়ায় বিজেপির ধূপগুড়ি মণ্ডল অফিসের সামনে ভিড় জমান মানুষ৷ পার্টি অফিসের সামনে বেলুন দিয়ে সাজিয়ে রাখা ছিল একটি হুডখোলা জিপ৷ রাস্তার অন্য ধারে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়ানো ২৪টি টোটো৷ লকেটের রোড শোয়ের জন্যই ছিল এই আয়োজন৷ ঠিক ছিল, ধূপগুড়ি পুরসভার ষোলটি ওয়ার্ডের মধ্যে আটটি ওয়ার্ডের ভেতর দিয়ে এ দিন লকেটের রোড শো হবে৷

কিন্তু আবহাওয়ার জন্য বাগডোগরায় বিমান নামতে দেরি করায় তাল কাটে গোটা কর্মসূচির৷ সন্ধ্যা ছ’টায় রোড শো শুরুর কথা থাকলেও লকেট ধূপগুড়িতেই পৌঁছান রাত আটটার পর৷ তখন ধূপগুড়িতে চলছে বৃষ্টি৷ ছাতা মাথায় দিয়েই পার্টি অফিসের সামনে ভিড়৷ লকেট পৌঁছাতেই উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়েন মানুষজন৷ পার্টি অফিসে ঢুকেই লকেট জানান, আবহাওয়ার জন্য বিমান বাগডোগরায় নামতে না পেরে গুয়াহাটি চলে যায়৷ পরে আবার বাগডোগরায় ফিরে আসে৷ তাই এই দেরি৷ তাঁর কথায়, ‘‘এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক যে আমার জন্য মানুষকে এতটা অপেক্ষা করতে হল৷’’

বৃষ্টিতেই চলছে তৃণমূলের বিধায়ক সৌরভ চক্রবর্তীর পথ সভা। ছবি: রাজকুমার মোদক

পার্টি অফিসে মিনিট পাঁচেক নেতা-কর্মীদের সঙ্গে কথা বলেই ছাতা মাথায় রোড শো শুরু করে দেন তিনি৷ তার আগে ধূপগুড়ি পুরসভার বিদায়ী তৃণমূল বোর্ডের বিরুদ্ধে দূর্নীতির অভিযোগ তুলে সরব হন ৷ তার অভিযোগ, সবার জন্য বাড়ি প্রকল্প থেকে শুরু করে রাস্তা সংস্কার বা বাড়িতে বাড়িতে পানীয় জল পৌঁছানোর কাজ – সবেতেই দূর্নীতি করেছে ধৃপগুড়ির তৃণমূল পুরবোর্ড৷ তাই মানুষ এ বার আর তৃণমূলের ওপর আস্থা না রেখে বিজেপিকেই পুরসভার ক্ষমতায় বসাবে৷ এবং মানুষও বুঝে গিয়েছে, বিজেপিই এখন একমাত্র বিকল্প৷ কটাক্ষের সুরে তিনি বলেন, ‘‘বিজেপিকে ভয় পাচ্ছেন তাই যে কোনও নির্বাচনে তৃণমূলের সাংসদ ও মন্ত্রীরা অনেক আগে থেকে এলাকায় ঘাঁটি গেড়ে থাকছেন৷ ধূপগুড়ি নির্বাচনও এর ব্যতিক্রম নয়৷ কিন্তু এত করেও এ বার আর তৃণমূলের কোনও লাভ হবে না।’’

শহরের আটটি ওয়ার্ডে রোড শো হওয়ায় কথা থাকলেও, দেরি হয়ে যাওয়ায় শুধুমাত্র জাতীয় সড়ক ধরেই তার রোড শো হয়৷ তাকে দেখতে রাস্তার দু’ধারে অনেকেই ভিড় করেন৷ বিজেপি নেতা আগুন রায় ও অলোক পাল জানান, শুক্রবার প্রচারের শেষ দিন বাকি সব জায়গায় রোড শো করবেন লকেট৷