দিনেদুপুরে এক ব্যবসায়ীর দেড় লক্ষেরও বেশি টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগ উঠল। সোমবার দুপুরে রায়গঞ্জের দেবীনগর এলাকার ঘটনা।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই ব্যবসায়ীর নাম প্রদীপ দে। দেবীনগর বাজারের বাসিন্দা প্রদীপবাবুর এলাকায় মোবাইলের দোকান রয়েছে। এ দিন ছিনতাইয়ের অভিযোগের পরে এলাকার বাসিন্দা ও ব্যবসায়ীরা পুলিশের বিরুদ্ধে নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ তুলে দুষ্কৃতীদের গ্রেফতার দাবিতে প্রায় আধঘণ্টা বিক্ষোভ দেখান। পরে পুলিশের আশ্বাসে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

রায়গঞ্জ থানার আইসি সুমন্ত বিশ্বাসের দাবি, তদন্ত শুরু হয়েছে। এলাকার এক ব্যবসায়ীর দোকানের চালু থাকা সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। দুষ্কৃতীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। পুলিশের বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন অভিযোগ তোলা হচ্ছে।

প্রদীপবাবুর দাবি, এ দিন দুপুরে তিনি ব্যবসার ১ লক্ষ ৫৩ হাজার টাকা জমা দেওয়ার জন্য একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কে যান। সেই সময় ব্যাঙ্কে গ্রাহকদের প্রচণ্ড ভিড় ছিল। ব্যাঙ্ক থেকে বেরিয়ে রায়গঞ্জ-কসবা রাজ্য সড়কের ধারে এসে তিনি নিজের মোবাইল ফোন থেকে দোকানের এক কর্মীকে ফোন করে তাঁর কাছ থেকে টাকা নিয়ে ব্যাঙ্কে জমা দিতে বলেন। প্রদীপবাবুর অভিযোগ, ফোনে কথা চলাকালীনই দুই যুবক দ্রুত গতিতে মোটরবাইকে চেপে এসে চলন্ত অবস্থায় তাঁকে আচমকা ধাক্কা মেরে টাকা বোঝাই ব্যাগটি ছিনিয়ে নিয়ে দেবীনগরের দিকে পালায়। তিনি রাস্তার ধারে পড়ে যান। তিনি বলেন, ‘‘বাইক চালকের মাথায় হেলমেট ছিল। পিছনের যুবকটি আমাকে ধাক্কা মেরে টাকার ব্যাগ ছিনতাই করে। পিছনে বাইক আরোহী হেলমেটহীন আরও দুই যুবক ছিনতাইকারীদের অনুসরণ করছিল।’’

রায়গঞ্জ মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক অতনুবন্ধু লাহিড়ীর অভিযোগ, শহরের ব্যাঙ্ক, বাজার ও জনবহুল এলাকাগুলিতে দিনের বেলায় পুলিশের নজরদারি নেই। শহরের বেশির ভাগ সিসি ক্যামেরা বিকল। তাই পুলিশের নিষ্ক্রিয়তার জেরে শহরে দিনেদুপুরে চুরি ও ছিনতাইয়ের ঘটনা বাড়ছে। তিনি বলেন, ‘‘পুলিশ অবিলম্বে দুষ্কৃতীদের গ্রেফতার করে নজরদারি না বাড়ালে নিরাপত্তার স্বার্থে সংগঠনের তরফে টানা আন্দোলনে নামা হবে।’’