পুর নির্বাচনের দিন ঘোষণা হয়ে গিয়েছে৷ কিন্তু প্রার্থী কাকে করা হবে—তা নিয়েই এখন হিমশিম খেতে হচ্ছে শাসক-বিরোধী দুই শিবিরকেই৷ কোনও দল যেমন কাকে ছেড়ে কাকে প্রার্থী করবেন, তা ভেবে কুল পাচ্ছে না৷ তেমনই কোন দল আবার যাকে প্রার্থী হিসাবে চাওয়া হচ্ছে—তাকে শেষ পর্যন্ত পাওয়া যাবে কি না, তা এখনও বুঝে উঠতে পারছে না৷

নির্বাচনের দিন ঘোষণা হলেও, ধূপগুড়িতে প্রার্থী বাছাই নিয়ে শাসক–বিরোধী উভয় শিবিরের পরিস্থিতিটা এখন ঠিক এমনই৷ আগামী ১৩ অগস্ট ধূপগুড়িতে পুর নির্বাচন৷ আজ সোমবার নির্বাচনে প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করার কথা বিরোধী বামেদের৷ বিজেপির প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করার কথা আগামীকাল মঙ্গলবার৷ আর শাসকদল তৃণমূলও যে কোনও দিনই তাদের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করে দেবে বলে দলীয় সূত্রের খবর৷

কিন্তু প্রার্থী বাছাই নিয়ে নাজেহাল অবস্থা বিভিন্ন দলের নেতাদেরই৷ তৃণমূল সূত্রের খবর, ধূপগুড়ি পুরসভার ষোলোটি ওয়ার্ডের বেশিরভাগ ওয়ার্ডেই কয়েকজন করে নেতা দলের প্রার্থী হওয়ার দাবি জানিয়েছেন৷ সূত্রের খবর, প্রার্থীপদ নিয়ে দিন কয়েক আগে প্রকাশ্যে বাকবিতণ্ডাও হয়৷ যদিও তৃণমূল নেতারা তা মানতে চাননি৷ দলের জেলা সভাপতি সৌরভ চক্রবর্তী বলেন, ‘‘তৃণমূলে একটি ওয়ার্ডে একাধিক প্রার্থীর দাবিদার থাকবে সেটাই স্বাভাবিক৷ তবে আমরা প্রত্যেকের আবেদনপত্র দলের রাজ্য নেতৃত্বকে পাঠিয়েছি৷ কোন ওয়ার্ডে কে প্রার্থী হবেন, সে ব্যাপারে তারাই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন৷ কবে প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হবে সেটাও তারা ঠিক করবেন৷’’

এর মধ্যেই রবিবার ফেসবুকে ধূপগুড়ির ১৪ নম্বর ওয়ার্ডে তৃণমূল প্রার্থী গুড্ডু সিংহকে ভোট দিন বলে ব্যানার পোস্ট করা হয়েছে। আর এই পোস্ট দেখে ক্ষুব্ধ স্বয়ং গুড্ডু সিংহ। তিনি বলেন, “একটি ব্যানারে কেবল দলের নাম ছিল। সেখানে আমার নাম জুড়ে আমাকে হেনস্থা করার জন্য কেউ জুড়ে দিয়েছে।”