তৃণমূলের পুর অভিযানের ২৪ ঘণ্টা আগে দুর্নীতির অভিযোগ ঘিরে সরগরম হল শিলিগুড়ি পুরসভা। সোমবার দুপুরে তৃণমূল প্রভাবিত পুর কর্মচারী সমিতির সদস্যরা মেয়রের বিরুদ্ধে দুর্নীতি, স্বজনপোষণের অভিযোগে সরব হন। মেয়র পারিষদদের বৈঠকের সময় বাইরে শুরু হয় তাদের বিক্ষোভ। বিষয়টি দেখার পর থেমে থাকেননি মেয়রও। তিনি পাল্টা পুরবোর্ডের তিন কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে এসজেডিএ কাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগ তুলে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান।

তবে ওই কাউন্সিলরদের নাম বা তারা কোন দলের তা জানাননি মেয়র। গত কয়েক বছরে ওই কাউন্সিলরদের আয়ের হিসাব প্রকাশ্যে আসা দরকার বলেও মন্তব্য করেন মেয়র। অশোকবাবু বলেন, ‘‘আমরা সব পুর কর্মীদের বেতন বৃদ্ধি ও উন্নতি চাই। এক সদস্যের কমিটিও গঠন হয়েছে। টাকার সমস্যা রয়েছে। কী ভাবে কী করা যায় তা দেখা হচ্ছে।’’ এর পরেই মেয়র অভিযোগ করেন, ‘‘পুরবোর্ডে তিনজন কাউন্সিলর রয়েছে। নামধাম বলছি না। ২০০ কোটি টাকার এসজেডিএ-র কাণ্ডে এদের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ ছিল। এখনও তো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এদের বছরের পর বছর আয়, সম্পত্তি বেড়েছে। সে সবও দেখা দরকার। উল্টে আমাদের নামে নানা কথা বলা হচ্ছে।’’

পুরসভার বিরোধী দলনেতা তৃণমূলের রঞ্জন সরকার বলেন, ‘‘উনি কি সিবিআই, সিআইডি না কি পুলিশ কনস্টেবল? কার কী হবে, কী করতে হবে তা উনিই ঠিক করে দিচ্ছেন। আসলে ভিত্তিহীন কথাবার্তা বলে নিজের দোষ আড়াল করতে চাইছেন।’’ তাঁর দাবি, ‘‘ওঁরা ৩৪ বছর দুর্নীতি করছেন। এখন পুর নিগমে বসে মর্জিমাফিক কাজ করছেন। এর বিরুদ্ধে আমরা রাস্তায় নেমেছি।’’