চেনা গণ্ডিতে কখনই বাঁধা পড়েননি তিনি। উল্টে নিজের খেয়ালেই শো-বিজ ইন্ডাস্ট্রির যাবতীয় নিয়মকানুন বার বার ভেঙেছেন। আর তাতে রীতিমতো সফলও তিনি। গ্র্যামি-র মঞ্চে পাওয়া গেল সেই পরিচিত আডেলকেই। সেরা অ্যালবামের পুরস্কার জিতেও জানালেন, তিনি নন, এর যোগ্য তাঁর ‘প্রতিদ্বন্দ্বী’ বিয়োন্সে। আর ভিড়ে ঠাসা প্রেক্ষাগৃহের সকলকে হতবাক করে মঞ্চেই ভেঙে দু’টুকরো করলেন পুরস্কারের ট্রফি।

রবিবাসরীয় সন্ধ্যায় এমন আরও অবাক করা কাণ্ড ঘটালেন ব্রিটিশ পপ কুইন আডেল। অনুষ্ঠানের শুরুতেই প্রয়াত গায়ক জর্জ মাইকেলকে শ্রদ্ধা জানিয়ে শুরু করেন তাঁর গান ‘ফাস্ট লভ’। কিন্তু, শুরুতেই বিপত্তি! ভুল মাত্রায় গান শুরু করলেন তিনি। আর তা বোঝামাত্রই সঙ্গে সঙ্গে গান বন্ধ করে দেন আডেল। লাইভ টেলিভিশনে সম্প্রচারিত হচ্ছিল সে অনুষ্ঠান। কিন্তু, সে সবের তোয়াক্কা না করে ফের ফিরলেন সঠিক সুরে। গত বার তো গ্র্যামির মঞ্চেই হাত থেকে মাইক পড়ে গিয়েছিল তাঁর। সে কথা মনে করিয়ে দিয়ে তিনি বলেন, “আমি দুঃখিত। জানি এটা টিভিতে সরাসরি সম্প্রচার হচ্ছে! তবে গত বারের মতো কিছু করতে পারব না।”

আরও পড়ুন

এটাই কি তৈমুরের আসল ছবি?

মঞ্চে পারর্ফম করছেন বিয়োন্সে। ছবি: সংগৃহীত।

গত কাল লস অ্যাঞ্জেলেসের স্টেপল সেন্টারে ন’টি মনোনয়ন নিয়ে আডেলের থেকে বহু যোজন এগিয়ে শুরু করেছিলেন বিয়োন্সে। কিন্তু, মোট পাঁচটি গ্র্যামি জিতে বাজিমাত করলেন আডেলই। আর শেষ বেলায় বছরের সেরা অ্যালবামের পুরস্কার নিতে উঠে আডেল বললেন, “এ পুরস্কার আমি গ্রহণ করতে পারি না। আমার জীবনের সেরা শিল্পী হলেন বিয়োন্সে।” বিয়োন্সের যে ‘লেমোনেড’ অ্যালবামের সঙ্গে তাঁর টক্কর ছিল তার ভূয়সী প্রশংসা করলেন আডেল। আর সকলের মতোই দর্শকাসনে বসা বিয়োন্সে তখন বাক্‌রুদ্ধ! সে অবস্থাতেই আডেলকে ধন্যবাদ জানালেন তিনি। আডেল তাতেও না থেমে বলতে থাকেন, “সমস্ত শিল্পীরা তোমাকে পছন্দ করে। তুমি হলে আমাদের জীবনের আলো।”