এক মাস হয়ে গিয়েছে। গত বছরের ৫ ডিসেম্বর চলে গিয়েছেন তিনি। কিন্তু, রেখে গিয়েছেন অনন্ত ইতিহাস। তিনি জয়ললিতা। তিনি আম্মা। রাজনীতিতে আসার আগের প্রেক্ষাপটে ছিলেন তুখোড় অভিনেত্রী। সৌন্দর্য আর ক্যারিশ্মায় মাত হয়েছিল সিলভার স্ক্রিন। আবার রাজনীতিতে এসেও ক্ষমতার শীর্ষে। আমজনতার কাছে ‘আম্মা’ হয়ে ওঠার এক উজ্জ্বল অতীত রয়েছে এই দাপুটে নেত্রীর। এমন বর্ণময় চরিত্রের বায়োপিক তো হতেই পারে। বায়োপিক হলে নিজের চরিত্রে কোন অভিনেত্রীকে পছন্দ সে কথাও নিজেই বলে গিয়েছিলেন জয়ললিতা।

আরও পড়ুন, জন্মদিনটা নিশ্চিত নয়, মৃত্যুদিনটা খোদাই হয়ে রইল ভারতীয় সিনেমার ইতিহাসে

১৯৯৯-তে সিমি গারেওয়ালকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে জয়ললিতা বলেছিলেন, ‘‘আমার তরুণ বয়সকে পর্দায় ফুটিয়ে তুলতে পারবে ঐশ্বর্যা রাই। ওকে ভাল মানাবে। কিন্তু আমি এখন যেমন, আর আমি ভবিষ্যতে যেমন হব, সেটা অভিনয় করাটা খুব একটা সহজ কাজ হবে না।’’

ইতিমধ্যেই তামিল অভিনেতা রামা কৃষ্ণন জয়ললিতার বায়োপিক তৈরির কথা প্রকাশ্যে জানিয়েছেন। তবে তিনি আম্মার চরিত্রে ঐশ্বর্যাকে কাস্ট করবেন কি না, সেটা জানতে অপেক্ষা করতে হবে সিনেপ্রেমীদের।  

ফটোশুটে ঐশ্বর্যা রাই।