ওয়ার্কশপেই জ্বরটা এসেছিল। কিন্তু, সেই জ্বর যে এ ভাবে স্বপ্নকে ভেঙেচুরে দেবে তা ভাবতেই পারেননি মিমি। আপাতত সব কিছু সরিয়ে ঘরবন্দি তিনি।

গত কালই অনুষ্কা শর্মা প্রযোজিত ছবি ‘পরী’র ফার্স্ট লুক প্রকাশ্যে এসেছে। ওই ছবিতেই মিমির প্রথম বলিউড ডেবিউ ছিল। হ্যাঁ, ছিল। কারণ, শুটিং শুরুর আগেই ওই প্রোজেক্ট ছেড়ে বেরিয়ে আসতে বাধ্য হয়েছেন নায়িকা। কাজেই আপাতত বলি-ডেবিউ হচ্ছে না মিমির।

অথচ সব কিছু ঠিকঠাকই ছিল। ‘পরী’তে বেশ গুরুত্বপূর্ণ একটা চরিত্রে অভিনয় করার কথা ছিল তাঁরা। সেই মতো মুম্বই গিয়েছিলেন। ওয়ার্কশপেও যোগ দেন। আর সেই সময়ে হঠাত্ ওয়ার্কশপের মধ্যেই কাঁপিয়ে জ্বর আসে। প্রবল শারীরিক কষ্ট নিয়েও স্রেফ মনের জোরে কাজ চালিয়ে যাচ্ছিলেন মিমি। কিন্তু, এর পরে সারা গায়ে র‌্যাশ বেরনোয় তা আর সম্ভব হল না। প্রবল জ্বর নিয়ে কলকাতায় ফিরে আসতে বাধ্য হন তিনি। শুটিং শুরুর আগে ওয়ার্কশপেই এমনটা হওয়ায় মিমির জায়গায় অন্য অভিনেত্রী কাজ করছেন। মিমি জানালেন, তাঁর জায়গায় বাঙালি অভিনেত্রী পার্নো মিত্রকে নেওয়া হয়েছে। ইন্ডাস্ট্রি সূত্রে খবর, চলতি মাসেই শুরু হবে ছবির শুটিং।

আরও পড়ুন, দাঙ্গার প্রেক্ষাপটে ভালবাসার গল্প বুনেছে ‘অরণি তখন’

হামে আক্রান্ত দিন সাতেক হাসপাতালে থাকার পর সদ্য বাড়ি ফিরেছেন। বুধবার আনন্দবাজারকে মিমি বলেন, ‘‘১০৩ ডিগ্রি জ্বর নিয়েও ওয়ার্কশপ করেছি। তার পর র‌্যাশ বেরোতে শুরু করায় ফিরে আসতে বাধ্য হলাম। আমার কিছু করার ছিল না। হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছি। ডাক্তার এখনও ১৫ দিন বাড়ি থেকে বেরোতে বারণ করেছেন। মাকে বলছিলেন, এত যে র‌্যাশ বেরতে পারে ভাবা যায় না!’’

কিন্তু, বলিউড ডেবিউতেই আটকে গেলেন। মন খারাপ করছে না? মিমি শেয়ার করলেন, ‘‘খারাপ লাগা তো আছেই। খুবই ভাল প্রোজেক্ট ছিল। করতে গিয়েও পারলাম না। তবে শরীরটা তো সবার আগে।’’

তবে মিমির মনখারাপের আরও একটা বড় কারণ রয়েছে। তাঁর দুই পোষ্য সারমেয় চিকু ও ম্যাক্সের এখন তাঁর কাছে আসা বারণ। মিমির কথায়, ‘‘বারণ শুনছে ওরা? দরজা খোলা পেলেই ঘরে ঢুকে আসছে। ছোটটা তো তা-ও এক রকম। বড়টা সারা ক্ষণ আমার গায়ে গা লাগিয়ে বসে থাকে।’’ দুর্বল থাকলেও শরীর আগের থেকে একটু ভাল আছে বলে জানিয়েছেন নায়িকা।