মাটি থেকে ফুট দেড়েক উঁচুতে উড়ন্ত টাইগার শ্রফ। গেঞ্জির উপর লাল চেক শার্ট পরা দু’হাত ছড়ানো দু’দিকে। মাথায় লাল ফেট্টি। মুখে কয়েক দিনের না-কামানো দাড়ি। সানগ্লাসে ঢাকা চোখের দীপ্তি। চার পাশে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে সঙ্গী-সাথীরা। সাব্বির খানের ফিল্ম ‘মুন্না মাইকেল’-এর নাচের দৃশ্যে এ ভাবেই ধরা দিলেন টাইগার।  ইনস্টাগ্রামে সে ছবিও পোস্ট করেছেন তিনি। ‘ডিং ডিং’ গানের শুটিংয়ের ওই ছবি দেখে অনেকেই বলছেন, অবিকল যেন বাবা জ্যাকি শ্রফের ছায়া টাইগার। টাইগার নিজেও স্বীকার করেছেন, “বাবাই আমার প্রথম হিরো। এই গানে তাঁকেই সম্মান জানাতে চেয়েছি।”

টাইগারের বিপরীতে নবাগতা নিধি অগ্রবাল। ছবি: সংগৃহীত।

‘মুন্না মাইকেল’-এ টাইগারের চরিত্রও যেন খানিকটা মিলে যায় তাঁর বাবার জীবনের সঙ্গে। কোনও গডফাদার ছাড়াই আশির দশকে বলিউডে পা রেখেছিলেন জ্যাকি। তার পর প্রায় চার দশক ধরে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে রয়েছেন। দু’শোরও বেশি ফিল্মের অভিনেতা জ্যাকির শুরুটা হয়েছিল ১৯৮২-তে সুভাষ ঘাইয়ের ‘হিরো’ দিয়ে। তবে তার আগের বছরেই অবশ্য দেব আনন্দের ‘স্বামীদাদা’য় একটা ছোট রোলে মুখ দেখিয়েছিলেন তিনি। তবে ‘হিরো’ই জ্যাকির কেরিয়ার এক ধাক্কায় অনেকটা এগিয়ে দেয়।

জ্যাকির স্ত্রী আয়েষাও জানিয়েছেন, বাবার সঙ্গে ছেলের স্বভাব-চরিত্রে বেশ মিল রয়েছে। আয়েষা বলেন, “গত সপ্তাহে ‘মুন্না মাইকেলে’র শুটিং দেখে আমি স্তব্ধ। জ্যাকির মতোই না-কামানো দাড়ি, সে রকম চুলের স্টাইল, জামাকাপড়, দু’চোখ। ‘হিরো’র সেই নায়ককেই যেন মনে করিয়ে দিচ্ছে টাইগার। কী অসাধারণ ভাবেই যে ওই চরিত্রটা করছে তা বলার নয়!”

‘ডিং ডিং’ গানের  উড়ন্ত টাইগার শ্রফ। ছবি: ইনস্টাগ্রাম।

‘কমবখ্‌ত ইশ্‌ক’, ‘হিরোপন্তি’, ‘বাঘি’-র পরিচালক সাব্বির খানের এই ফিল্মে টাইগার এক জন স্ট্রিট ডান্সার। মাইকেল জ্যাকসনের আদবকায়দায় নাচেন। রাস্তা থেকেই তাঁর উত্থান। ফিল্মে নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকির রোলও বেশ চমকজাগানো। টাইগারের সঙ্গে নজরকাড়া নবাগতা নিধি অগ্রবাল। গণেশ আচার্যের কোরিওগ্রাফিতে চুটিয়ে নাচছেন টাইগার। প্রথমে নওয়াজের লুক। তার পর টাইগারের নাচের ছবি— আগামী ৭ জুলাই রিলিজের আগে ‘মুন্না মাইকেল’ ঘিরে তাই ক্রমশই বাড়ছে উৎসাহ।

আরও পড়ুন: ‘নাম শাবানা’ ট্রেলার জুড়ে কেবলই চমক