অভিষেক বচ্চনের সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়েছে ২০০৭-এ। মেয়ে আরাধ্যা হওয়ার পরও কেটে গিয়েছে পাঁচ বছর। এই ১০ বছরে যেন বচ্চন পরিবারের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হয়ে উঠেছেন ঐশ্বর্যা রাই বচ্চন। প্রথম থেকেই অভিষেকের পদবী নিজের নামের সঙ্গে বিনা দ্বিধায় জুড়ে নিয়েছেন তিনি। কেরিয়ারের পাশাপাশি ব্যক্তি জীবনেও ব্যালান্স করে চলেছেন প্রতি মুহূর্তে। মেয়ে হওয়ার পর তার সব কাজও করেছেন নিজে হাতেই।

শোনা গিয়েছিল এ হেন বচ্চন-বধূর নাকি অমিতাভ-জয়ার সঙ্গে একেবারেই ভাল সম্পর্ক নয়। সম্প্রতি ‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’-এ রণবীর কপূরের সঙ্গে তাঁর ঘনিষ্ঠ দৃশ্য নিয়েও নাকি গৃহবিবাদ চরমে ওঠে। নাম না করেই প্রকাশ্যে ঐশ্বর্যাকে বিঁধে মন্তব্য করেন জয়া। ঐশ্বর্যাও নিজের মতো করে সে মন্তব্যের উত্তর দেন। তবে সে সব আদৌ কতটা সত্যি, তা নিয়ে জল্পনা রয়েছে

বিনোদন মহলে।

আরও পড়ুন, ঋতাভরীর নতুন উড়ানে সঙ্গী ‘ওরে মন’

পা-এর সঙ্গে ঐশ্বর্যা। ছবি: টুইটারের সৌজন্যে।

সম্প্রতি পর পর কয়েকটি অনুষ্ঠানে অমিতাভ-জয়ার সঙ্গে ঐশ্বর্যার সম্পর্কের যে মুহূর্ত ফ্রেমবন্দি হয়েছে তা কিন্তু অন্য ইঙ্গিত দিচ্ছে। কখনও জয়ার কাঁধে পরম নির্ভরতায় মাথা রেখেছেন ঐশ্বর্যা। কখনও বা পুরস্কার নিতে উঠে পা ছুঁয়ে প্রণাম করেছেন অমিতাভকে। সব মিলিয়ে অন্তরালে থাকা পারিবারিক সুখের ছবিটিই যেন দেখেছেন সকলে।

এ সব দেখে বি-টাউনের একটা অংশ যখন বলছে, অমিতাভ-জয়ার সঙ্গে বরাবরই ঐশ্বর্যার সম্পর্ক খুব ভাল। অতীতে একাধিক বার ঐশ্বর্যার হয়ে ক্যামেরার সামনে মুখ খুলেছেন জয়া। আবার একটা অংশের মতে, গৃহবিবাদ যাই থাকুক না কেন, বাইরে তা প্রকাশ করতে চান না বচ্চনরা।