রুপোলি পর্দায় কখনও পুলিশ, কখনও বা দুষ্কৃতীর অভিনয় করতে হয় অভিনেতাদের। এ বার অভিনেতা সেজে ফেসবুকে জালিয়াতির জাল বিছিয়ে ধরা পড়ল এক যুবক। অভিযোগ, তার ফাঁদে পা দিয়ে টাকা খুইয়েছেন অনেকে। কিন্তু শেষ রক্ষে হল না। এক মহিলা প্রতারণার অভিযোগ দায়ের করলে তদন্তে নামে সাইবার ক্রাইম থানা। শুক্রবার খড়্গপুর থেকে ধরা পড়ে অভিযুক্ত। শনিবার লালবাজার জানায়, ধৃতের নাম সত্যব্রত দাস। সে টলিউডের অভিনেতা ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি দিয়ে ভুয়ো প্রোফাইল খুলেছিল ফেসবুকে। ধৃতের কাছে উদ্ধার হয়েছে ল্যাপটপ, একগুচ্ছ মোবাইল ও সিম কার্ড। 

আরও পড়ুন: সদিচ্ছায় ভর সেন্সর বোর্ডের নয়া প্রধানের

পুলিশ জানিয়েছে, অভিনেতা ভাস্কর বন্দোপাধ্যায়ের নিজস্ব ফেসবুক অ্যাকাউন্ট আছে। সত্যব্রত তাঁর নামে ভুয়ো প্রোফাইল খুলেছিল মাস কয়েক আগে। পুলিশ জানায়, বিভিন্ন মহিলাকে বন্ধুত্বের অনুরোধ পাঠাত সত্যব্রত। অভিযোগকারিণী পুলিশকে জানান, অভিনেতার সঙ্গে আলাপ করার আনন্দে তিনি বুঝতে পারেননি প্রোফাইলটি ভুয়ো। সেখানেই সত্যব্রত আর্টিস্ট ফোরামের নাম করে একটি নতুন ছবির কথা জানায়। ঘোষণা করে তাতে নায়ক-নায়িকা নেওয়া হবে। পুলিশ জানায়, অভিনয়ে আগ্রহীদের নির্দিষ্ট একটি অ্যাকাউন্ট নম্বরে পনেরো হাজার টাকা জমা দিতে বলা হয়। বেশ কয়েক জন টাকা জমাও দেন অ্যাকাউন্টে। এর পরেই বন্ধ হয়ে যায় প্রোফাইলটি। পুলিশ জানায়, ভুয়ো প্রোফাইলের কথা জানার পরে অভিনেতা ভাস্করবাবু নিজের ওয়ালে একটি পোস্ট দেন। তা দেখে অনেকেই বোঝেন, তাঁরা প্রতারিত হয়েছেন। ইতিমধ্যে ভুয়ো প্রোফাইল মুছে দেয় সত্যব্রত। এর পরে অভিযোগ দায়ের হলে তদন্তে নামে সাইবার অপরাধ থানা। তদন্তকারীরা জানান, পরিকল্পনা করেই প্রোফাইলটি খুলেছিল সত্যব্রত। পনেরো জনের কাছ থেকে কয়েক লক্ষ টাকা হাতিয়েছে সে। তবে সকলকে একই ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নম্বর বা ফোন নম্বর দিত না ধৃত।

ভাস্কর বন্দোপাধ্যায়ের সেই পোস্ট