একটা সময় ছিল যখন ইডেন গার্ডেন্স স্পিনারদের স্বর্গরাজ্য ছিল। এতটাই যে কলকাতা নাইট রাইডার্স চোখ বুজে তিন জন স্পিনার খেলিয়ে দিত। পিচ নতুন করে তৈরি হওয়ার পরে প্রথম ছয় ওভারে এখন পেসাররাও অনেক সাহায্য পাচ্ছে। তবে ইডেনের একটা জিনিস বদলায়নি। আউটফিল্ড। ফিল্ডারদের পক্ষে তাড়া করে বল বাঁচানো এখানে বরাবরই কঠিন কাজ।

গুজরাতের কাছে কিন্তু এই ম্যাচটা টুর্নামেন্টের ভাগ্য ঠিক করে দেওয়ার ম্যাচ হতে যাচ্ছে। ওদের বোলাররা সে রকম কিছুই করতে পারছে না। তার পর এ বার সামনে কেকেআর। যাদের বিরুদ্ধে আপনি আগে থেকে কোনও পরিকল্পনা করে নামতে পারবেন না। ওরা সব সময় নিজেদের অস্ত্র বদলাচ্ছে। ব্যাপারটা অনেকটা চলমান কোনও বস্তুকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ার মতো। কেকেআরের বিরুদ্ধে খেলা মানে কানা গলিতে অন্ধের মতো হাতড়ানো। 

আরও পড়ুন: আইজলের দ্বাদশ ব্যক্তি নেমে পড়ল

কেকেআরের সঙ্গে প্রথম ম্যাচটার কথাও নিশ্চয়ই ভুলতে পারেনি গুজরাত। ১৮০ রান বোর্ডে নিয়ে বিপক্ষের একটা উইকেটও ফেলতে পারেনি সুরেশ রায়নার টিম। হায়দরাবাদ ওদের হারিয়েছে নয় উইকেটে। ক্রিস গেলের ঝড় নিশ্চয়ই ওদের মনে এখনও ধ্বংসের দাগ রেখে দিয়েছে।