ভারতে আসছেন চিনা বিদেশমন্ত্রী ওয়াং ই। দু’দেশের বিভিন্ন বিতর্কিত বিষয় নিয়ে দিল্লির সঙ্গে আলোচনায় বসবেন তিনি।

শি চিনফিং দ্বিতীয়বারের জন্য চিনের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পরে, বেজিং থেকে এই প্রথম এত বড় মাপের কেউ ভারতে আসছেন। ওয়াং এ বার চিনা কমিউনিস্ট পার্টির পলিটব্যুরোর সদস্যও হয়েছেন। কূটনীতিকদের মতে, মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী আখ্যা দিতে বারবার রাষ্ট্রপুঞ্জে চিনের বাধা, ভারত-চিন সীমান্ত সমস্যা ও চিন-পাকিস্তান মহাসড়ক প্রকল্পের বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন ওয়াং।

বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র জেং সুয়াং জানিয়েছেন, ১১ ডিসেম্বর নয়াদিল্লিতে রাশিয়া-ভারত ও চিনের ত্রিদেশীয় বৈঠকে যোগ দেবেন ওয়াং। পাশাপাশি তিনি ভারতের শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গেও আলোচনা চালাবেন। তিন দেশের বিদেশমন্ত্রীদের এই বৈঠক গত এপ্রিলেই হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সে সময়ে দলাই লামার অরুণাচল সফর নিয়ে নয়াদিল্লির সঙ্গে টানাপড়েনে জড়িয়ে পড়ে বেজিং। এর পরেই ডোকলামে সেনা সমাবেশ ঘিরে টানা ৭৩ দিনের স্নায়ুযুদ্ধ। দু’পক্ষ ডোকলাম থেকে পর্যায়ক্রমে সেনা সরানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে এই মুহূর্তে সংঘাত অনেকটা লঘু করলেও চিন জানিয়েছে, এই শীতেও ওইএলাকায় সেনা মজুত রাখবে তারা।

এ মাসের শেষেই দু’দেশের সীমান্ত বৈঠক নির্ধারিত রয়েছে। চিনের পক্ষে ইয়াং জেইচি ও ভারতের পক্ষে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা এই আলোচনায় যোগ দেবেন। সীমান্ত বৈঠকের আগে তাই চিনা বিদেশমন্ত্রীর ভারত সফরকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে।