সুপ্রিম কোর্টের সঙ্গে সরাসরি সংঘাতে জড়িয়ে মলদ্বীপে জরুরি অবস্থা জারি করলেন প্রেসিডেন্ট আবদুল্লা ইয়ামিন। এই পরিস্থিতিতে ভারতীয় নাগরিকদের সে দেশে বেড়াতে যাওয়া নিয়ে সতর্কতা জারি করেছে নয়াদিল্লি। বিদেশ মন্ত্রক জানিয়েছে, জরুরি নয়, ভারতীয় নাগরিকদের এমন সফরের কোনও প্রয়োজন নেই। সে দেশে রয়েছেন, এমন ভারতীয়দেরও নিরাপত্তার ব্যাপারে সতর্ক করা হয়েছে। চিনও একই ভাবে তাদের নাগরিকদের মলদ্বীপে যেতে নিষেধ করেছে।

মলদ্বীপের সরকারি টেলিভিশনে প্রেসিডেন্টের সহযোগী আজিমা শুকুর আজ ঘোষণা করেছেন, ১৫ দিনের জন্য জরুরি অবস্থা জারি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ইয়ামিন। এর ফলে সরকার বিরোধীদের গ্রেফতার ও আটক করার যাবতীয় ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে নিরাপত্তা বাহিনীকে।
ক’দিন আগেই সুপ্রিম কোর্ট মলদ্বীপের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট মহম্মদ নাশিদ ও জেলবন্দি ৯ জন বিরোধী নেতাকে মুক্তি দেওয়ার কথা ঘোষণা করে সুপ্রিম
কোর্ট। ২০১৬-এ জেল হয় নাশিদের। চিকিৎসার ছুটি নিয়ে ব্রিটেনে যাওয়ার পরে সেখানেই রাজনৈতিক আশ্রয় পান তিনি। এখনও তিনি দেশের বাইরে। মুক্তি পেতেই মলদ্বীপের ভোটে ইয়ামিনকে চ্যালেঞ্জ জানাবেন বলে ঘোষণা করেছেন তিনি।

তবে ইয়ামিন জানিয়ে দেন, কোর্টেররায় মেনে নেবে না সরকার। তাঁর দফতর থেকে চিঠি পাঠিয়ে কোর্টকে জানানো হয়, এক্তিয়ারের বাইরে গিয়ে রায় দিয়েছে কোর্ট। এতে দেশের নিরাপত্তায় আঘাত আসবে। এর পরেই জরুরি অবস্থা জারির সিদ্ধান্ত।