এফবিআই-এর নথি ফাঁস ঘিরে এখনও উত্তাল আমেরিকা। কিন্তু বিতর্কিত এই নথিটি যে কার তৈরি, তা নিয়ে জল্পনা চলছেই। দলীয় সূত্র এবং কূটনীতিকদের মধ্যে থেকে দু’টি নাম উঠে আসছে। রিপাবলিকান প্রতিনিধি পরিষদের গোয়েন্দা কমিটির চেয়ারম্যান ডেভিন নুনেজ যে হেতু নথিটি সামনে আনেন, সংবাদমাধ্যমের একাংশ তাই একে ‘নুনেজ-মেমো’ বলছে। কেউ আবার বলছেন ‘কাশ-মেমো’-র কথাও!

সেই সূত্রেই মার্কিন মলুকে এখন জোর আলোচনা বছর আটত্রিশের ভারতীয় বংশোদ্ভূত আইনজীবী কাশ্যপ পটেলকে ঘিরে। নুনেজদের কমিটিতে যোগ দেওয়ার আগে তিনি বিচার বিভাগে চাকরি করতেন। শোনা যাচ্ছে, এই মেমোর পুরোটাই তাঁর মস্তিস্কপ্রসূত। কাশ্যপের জন্ম ও বেড়ে ওঠা নিউ ইয়র্কে। ২০০২-এ রিচমন্ড ইউনিভার্সিটি থেকে তিনি আইন পাশ করেন। এই মুহূর্তে তিনি হাউস পার্লামেন্ট সিলেক্ট কমিটির সন্ত্রাসবাদবিরোধী বিশেষ কৌঁসুলীও। এফবিআই যে যথেষ্ট নিরপেক্ষ ভাবে তদন্ত করেনি, বরং ট্রাম্পকে বিপাকে ফেলাই তাদের মূল লক্ষ্য ছিল— মেমোতে তার স্পষ্ট ইঙ্গিত রয়েছে। তবে এই মেমোটি যে তাঁরই তৈরি, এমন জল্পনা আজ সরাসরি উড়িয়ে দিয়েছেন কাশ্যপ।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের দল গোড়া থেকেই বলে আসছিল, এই মেমো মার্কিন ভোটে রুশ হস্তক্ষেপের তদন্ত সংক্রান্ত। কিন্তু শুক্রবার কংগ্রেসের হাতে যা তুলে দেওয়া হয়েছে, রুশ তদন্তে তার প্রভাব পড়বে না বলেই শনিবার জানালেন রিপাবলিকানদের হাউস ওভারসাইট কমিটির চেয়ারম্যান ট্রে গাওডি। নিজেকে রাজনৈতিক চক্রান্তের শিকার দাবি করে ফের সরব হয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পও।