আল কায়েদার বিরুদ্ধে বড়সড় সাফল্য পেল আফগান সেনা। মার্কিন সেনার সঙ্গে যৌথ অভিযানে নিহত হলেন আল কায়েদার অন্যতম শীর্ষ নেতা ওমর বিন খেতাব। ভারতীয় উপমহাদেশে অল কায়েদার সেকেন্ড-ইন-কম্যান্ড হিসেবেই পরিচিত ছিলেন ওমর।

আফগানিস্তান গোয়েন্দা দফতর ন্যাশনাল ডিরেক্টরেট অব সিকিউরিটি (এনডিএস) সূত্রে খবর, সপ্তাহ দুয়েক ধরেই গজনী, পাখতিয়া ও জাবুল প্রদেশে আকাশ ও স্থলপথে অভিযান চলাচ্ছিল যৌথ বাহিনী। গজনী প্রদেশের জিলান জেলায় যৌথ বাহিনীর সঙ্গে এক সংঘর্ষে নিহত হয় ওমর-সহ ৮০ জন জঙ্গি।

এনডিএস-এর দাবি, ২০০১-এ দেশ থেকে তালিবান বিতারণের পর সে দেশে জঙ্গি দমনে এত বড় সাফল্য এল। ওমর মনসুর নামেও পরিচিত ওই জঙ্গি সে দেশে তালিবান জঙ্গিদের প্রশিক্ষণের কাজে জড়িত ছিল। রাতের অন্ধকারে হামলা চালানোর জন্য তালিবানকে বিশেষ প্রশিক্ষণ দিত সে। এক বিবৃতিতে ন্যাটো জানিয়েছে, ভারী অস্ত্র ও বিস্ফোরক বিশেষজ্ঞ ছিল ওমর।

আরও পড়ুন

সরলেন জি ডি বিড়লার প্রিন্সিপাল, স্কুল আজ থেকেই

ধর্ম দেখি না, মুসলিমদের দেখবই: মমতা

২০১৪-তে একটি ভিডিও বার্তার ভারতে নিজেদের শাখার ঘোষণা করেন আল কায়েদা প্রধান আয়মান আল-জওয়াহিরি। এ দেশে আল কায়েদার অস্তিত্ব প্রায় নেই বললেই চলে। সম্প্রতি প্রাক্তন হিজবুল মুজাহিদিন জঙ্গি জিকর রশিদ ভট্ট ওরফে জাকির মুসাকে এই শাখার নেতা ঘোষণা করা হয়। ওমর সেই শাখারই দু’নম্বর নেতা ছিলেন। ওমরকে খতম করার দাবি করলেও অভিযান নিয়ে বিস্তারিত ভাবে কিছু জানায়নি আফগানিস্তান। বছর চল্লিশের ওমর পাকিস্তানের উপজাতি অঞ্চলের বাসিন্দা ছিল।