সমকামী বিয়ে আইনি বৈধতা পেল অস্ট্রেলিয়ায়। বৃহস্পতিবার হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভ ক্রস পার্টি বিল পাশ করে এই ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত নেয়। ২০০৪ সালে সমকামী বিয়েকে বেআইনি ঘোষণা করে অস্ট্রেলিয়ার আদালত।এ দিন বিশ্বের ২৫তম দেশ হিসেবে সমকামী বিয়ে বৈধ ঘোষণা করল অস্ট্রেলিয়া।

এই ঘোষণার পরে প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুল বলেন, অস্ট্রেলিয়া পেরেছে। প্রতি অস্ট্রেলীয়র নিজস্ব মতামত রয়েছে এবং তার সব কটাই ঠিক। এগিয়ে যাও। আমরা আজ সাম্যের পক্ষে ভোট দিয়েছি। ভালবাসা, দায়বদ্ধতা, সম্মানের পক্ষে।

সমকামী বিয়েকে আইনি ঘোষণা করার পর অস্ট্রেলিয়ার অ্যাটর্নি জেনারেল জর্জ ব্র্যান্ডিস জানান, ৯ ডিসেম্বর থেকে সমকামীরা বিয়ের জন্য আইনি নোটিস দেওয়া শুরু করতে পারবেন। নোটিস দেওয়ার ২৮ দিনের মাথায় তাঁরা বিয়ে করতে পারবেন। অর্থাত্, প্রথম দিন নোটিস দিলে ৬ জানুয়ারি, ২০১৮-তেই সংঘটিত হতে পারে দেশের প্রথম সমকামী বিয়ে।

আরও পড়ুন: প্রয়াত প্রফুমো কেলেঙ্কারির সেই মডেল

ইতিমধ্যেই যে সব অস্ট্রেলীয় সমকামীরা নিউ জিল্যান্ড, ব্রিটেন বা কানাডার মতো দেশগুলিতে বিয়ে করেছেন, এই আইন পাশের পর তাঁদের বিয়ে স্বাভাবিক ভাবেই নিজেদের দেশেও বৈধতা অর্জন করবে।

আরও পড়ুন: শ্বেতাঙ্গ সন্তানের জন্ম দিয়ে নিজেরাই ‘অবাক’ কৃষ্ণাঙ্গ দম্পতি!

এখনও পর্যন্ত যে দেশগুলোতে সমকামী বিয়ে বৈধতা পেয়েছে তার মধ্যে রয়েছে আর্জেন্তিনা, বেলজিয়াম, ব্রাজিল, কানাডা, কলম্বিয়া, ডেনমার্ক, ফিনল্যান্ড, ফ্রান্স, জার্মানি, আইসল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড, লুক্সেমবার্গ, মাল্টা, মেক্সিকো, নেদারল্যান্ডস, নিউ জিল্যান্ড, নরওয়ে, পর্তুগাল, দক্ষিণ আফ্রিকা, স্পেন সমেত আরও বেশ কিছু দেশ।