রাষ্ট্রপুঞ্জের সাংস্কৃতিক শাখা ইউনেস্কো থেকে বেরিয়ে যাচ্ছে আমেরিকা। ইউনেস্কো নিরপেক্ষ নয়, তারা পক্ষপাতদুষ্ট— এমনই অভিযোগ ওয়াশিংটন ডিসি’র। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দেশের অভিযোগ, ইউনেস্কো ইজরায়েল বিরোধী অবস্থা নিয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসি সূত্রে এমনটাই জানা গিয়েছে।

মার্কিন বিদেশ মন্ত্রক সূত্রে খবর, আগামী ৩১ ডিসেম্বর থেকেই এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে ট্রাম্প প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে, ‘‘আমেরিকা খামখেয়ালি ভাবে ইউনেস্কো ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেয়নি। এই সিদ্ধান্তের মধ্য দিয়ে ইউনেস্কোয় বাড়তে থাকা বকেয়া, ইজরায়েলের বিরুদ্ধে পক্ষপাত নিয়ে উদ্বেগেরই বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে।’’ পাশাপাশি এই সংগঠনের আমূল সংস্কার প্রয়োজন বলেও মত প্রকাশ করেছে ট্রাম্প প্রশাসন।

আরও পড়ুন: যুদ্ধ অনিবার্য, পুড়তে হবে আমেরিকাকে, প্রবল হুঙ্কার উত্তর কোরিয়ার

আমেরিকার এই সিদ্ধান্ত ঘোষণার পরই ইউনেস্কোর প্রধান ইরিনা বোকোভা বলেছেন, ‘‘আমেরিকার প্রতিনিধি প্রত্যাহারের বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখের।’’ এর ফলে রাষ্ট্রপুঞ্জ পরিবারের এবং জোটের বড় ক্ষতি হল বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। 

আরও পড়ুন: ইমরানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা পাক নির্বাচন কমিশনের

এর আগে, প্যালেস্তাইনকে পূর্ণ সদস্য পদ দেওয়ার বিরোধীতা করে ২০১১ সালে আমেরিকা ইউনেস্কোকে আর্থিক সহযোগিতা বন্ধ করে দিয়েছিল। এমনকী, আমেরিকার প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রিগানের সময় ইউনেস্কো থেকে বেরিয়ে গিয়েছিল। পরবর্তী সময়ে প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশের আমলে আবার ইউনেস্কোতে যোগ দেয় তারা।