দক্ষিণপন্থী শ্বেতাঙ্গদের মিছিলে উত্তপ্ত হয়ে উঠল ভার্জিনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়। শুক্রবার রাত ন’টা নাগাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের শার্লটসভিলে ক্যাম্পাসে শুরু হয় ‘ঐক্যবদ্ধ দক্ষিণপন্থীদের’ এই মিছিল। টর্চ হাতে তাতে যোগ দেন কয়েক’শো তরু‌ণ-তরুণী। মুখে ছিল স্লোগান, ‘ইহুদিরা আমাদের টলাতে পারবে না’, ‘দেশের রক্ত–দেশের মাটি’, ‘এক দেশ, এক মানুষ, অভিবাসন বন্ধ হোক’।

তবে মিছিল শুরু হওয়ার মিনিট কুড়ির মধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা থমাস জেফারসনের মূর্তির তলায় বিরোধীদের সঙ্গে একচোট হাতাহাতি হয়ে যায় তাঁদের। অভিযোগ, বিরোধী পক্ষের কেউ অন্য পক্ষের দিকে রায়াসনিক স্প্রে করে। এতে উত্তেজনা আরও বেড়ে গেলে পুলিশ হস্তক্ষেপ করতে বাধ্য হয়।

আরও পড়ুন: ট্রাম্পকে সংযত থাকার আর্জি জানালেন শি

ডোনাল্ড ট্রাম্প মার্কিন প্রেসিডেন্ট পদে বসার পরেই মার্কিন মুলুক জুড়ে এই ধরনের দক্ষিণপন্থীদের দাপট বেড়েছে। তাদের পালে আরও হাওয়া জুগিয়েছে মুসলিম বা অভিবাসীদের বিরুদ্ধে ট্রাম্পের একের পর এক বিদ্বেষমূলক মন্তব্য। অভিযোগ, ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার আগে থেকেই এমন সব মন্তব্য করছেন, যেন আমেরিকা মূলত শ্বেতাঙ্গদের দেশ। এ ক্ষেত্রে ঘটনার সূত্রপাত শার্লটসভিলে থেকে মার্কিন গৃহযুদ্ধের সময়ের কনফেডারেট জেনারেল রবার্ট ই লি-র একটি মূর্তি সরিয়ে দেওয়া নিয়ে। জেনারেল লি-এর ওই মূর্তিটি সরিয়ে ফেলার জন্য এপ্রিলে ভোট দিয়েছে শহর পরিষদ। এ ছাড়াও সম্প্রতি দুই কনফেডারেট জেনারেলের নামে থাকা দু’টি পার্কের নামও বদলে দেওয়ায় খেপে ওঠেন দক্ষিণপন্থীরা।  

শুক্রবারের এই মিছিলের সমালোচনা করেছেন স্থানীয় বাসিন্দা ও রাজনীতিবিদের একাংশ। শহরের মেয়র মাইক সিংগার বলেছেন, ‘‘এই মিছিল হিংসা, বিদ্বেষ, অসিহষ্ণুতা ও ধর্মান্ধতার।’’