তাঁর কাছে খবর রয়েছে, প্রেসিডেন্ট আবদুল্লা ইয়ামিনকে ইমপিচ করতে চাইছে সুপ্রিম কোর্ট। চেষ্টা চলছে উৎখাতেরও। রবিবার এই অভিযোগ এনে দেশের সর্বোচ্চ আদালতের বিরুদ্ধে এক প্রকার যুদ্ধই ঘোষণা করলেন মলদ্বীপের অ্যাটর্নি জেনারেল মোহামেদ অনিল। প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্ট এমন রায় দিলে দেশের সব মন্ত্রক ও প্রতিষ্ঠানকে বেঁকে বসার আর্জি জানান অনিল। কোর্টের মোকাবিলায় এজি তৈরি থাকতে বলেছেন দেশের সেনা-পুলিশকেও।

ইয়ামিনের বিরুদ্ধে অভিযোগ, রাজনৈতিক প্রতিহিংসা থেকেই দেশের বহু বিরোধী নেতাকে অন্যায় ভাবে গ্রেফতার করে রেখেছে তাঁর প্রশাসন। ভুয়ো মামলায় জড়ানো হয়েছে দেশের প্রাক্তন প্রেসি়ডেন্ট মহম্মদ নাশিদ-সহ অন্তত ৯ জনকে। গত সপ্তাহেই এঁদের বিরুদ্ধে মামলা খারিজ করে ছেড়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। কিন্তু প্রেসিডেন্ট নাকি কান দেননি। সেই কারণেই এ বার খড়্গহস্ত হচ্ছে সুপ্রিম কোর্ট।

দেশের প্রথম নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট নাশিদ-ই এখন মলদ্বীপে বিরোধী জোটের মুখ। সন্ত্রাসের দায়ে ২০১৫-য় তাঁকে ১৩ বছরের জন্য কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছিল। এখন তিনি ব্রিটেনের আশ্রয়ে। কূটনীতিকদের একাংশ বলছেন, এ বছর ভোটের আগেই নিজের রাজনৈতিক অধিকার ফিরে পেতে মরিয়া তিনি।