সবে তিনি ভারতের টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডে পা রেখেছেন। এখনও জাতীয় দলের নীল জার্সিতে অভিষেক ঘটেনি। বয়স মাত্র উনিশ। কিন্তু এখনই যে ভাবে তাঁকে তারকার তকমা দেওয়া হচ্ছে, তাতে তিনি নিজেই অবাক!

তিনি ঋষভ পন্থ। উত্তরাখন্ডের রুড়কির মতো ছোট শহর থেকে উঠে আসা উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান। দিল্লির হয়ে যাঁর আট রঞ্জি ম্যাচে রান ৯৭২। স্টাম্পের পিছনেও গ্লাভস হাতে সফল। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে আসন্ন টি-টোয়েন্টি সিরিজের জন্য ভারতীয় দলে নির্বাচিত হওয়ার খবর যখন পান, ঋষভ সেই সময় মুম্বইয়ের এক টুর্নামেন্টে খেলছিলেন।

এর পরে নয়াদিল্লিতে বেঙ্কটেশ্বর কলেজের মাঠে ঋষভ যে দিন প্রথম প্র্যাকটিস করলেন, তাঁকে দেওয়া হল বীরের সংবর্ধনা। সেখানে তারক সিংহের কোচিং ক্যাম্পের নেটে ঋষভের ব্যাট হাতে ঢোকার সময় কলেজের দু’ধারে দাঁড়িয়ে অজস্র পড়ুয়া। সারিবদ্ধ হয়ে হাততালি দেওয়া চলল। দেখে মনে হবে, বীরেন্দ্র সহবাগ যেন আর এক বার কোটলায় নামলেন!

কেমন লাগছে এ সব? ঋষভকে প্রশ্ন করলে কিছুটা সলজ্জ ভাবেই বললেন, ‘‘মুহূর্তটাকে উপভোগ করছি। এর বেশি আর কী বলব?’’ তার পরে অবশ্য যোগ করলেন,  ‘‘এ বার রঞ্জিতে ভাল রান পেয়েছি। একটু আশা ছিল, একটা সুযোগ হয়তো পেলেও পেতে পারি ভারতীয় দলে। সেটা হওয়ায় আমি প্রচণ্ড খুশি।’’

ভারত ‘এ’ দলকে নিয়ে অনিল কুম্বলের ক্লাস।–টুইটার

এই কলেজেই

স্নাতক কোর্সের দ্বিতীয় বর্ষে এ বার উঠতে পারেননি। ক্লাসে উপস্থিতি-হার খুব কম থাকায় শেষ মুহূর্তে পরীক্ষায় বসা হয়নি। তবে তাতেও কলেজ থেকে ঋষভের উপর ক্লাস বেশি করার জন্য নাকি চাপ নেই। ‘‘কলেজ কর্তৃপক্ষ আমাকে বলে দিয়েছেন, আমি যেন মন দিয়ে ক্রিকেট খেলাটা চালিয়ে যাই। বাকিটা ওঁনারা সামলে নেবেন। গত মরসুমে পরীক্ষার সময় আমি রঞ্জি খেলতে ব্যস্ত ছিলাম,’’ আনন্দবাজারকে বললেন ঋষভ।’’

আরও মজার ব্যাপার হল, ভারতীয় দলে ঢুকে পড়লেও এখনও নিজের কলেজের হয়ে এক বারও খেলা হয়নি ঋষভের। ‘‘আসলে নানা কারণে হয়ে ওঠেনি,’’ বলে হেসে ফেলেন তিনি। তবে দিল্লির বসন্তকুঞ্জের বর্তমান বাসিন্দা আইপিএলে দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের হয়ে খেলতেই নিজের কলেজে তারকার তকমা পেতে শুরু করেছিলেন প্রথম।

সহবাগের ভক্ত ঋষভের ব্যাটিং স্টাইল অনেকটা তাঁর আইডলের মতো। বললেনও, ‘‘বীরেন্দ্র সহবাগই আমার আদর্শ। ওঁর মতোই খেলার চেষ্টা করি। তবে বীরু স্যার আমাকে বলেছেন, ব্যাট করার সময় মাথায় কোনও টেনশন রাখবি না। উল্টে টেনশনে ফেলে দিবি বোলারকে। আর সেই মন্ত্রই ফলো করি।’’

সিনিয়র আন্তর্জাতিক লেভেলে বৃহস্পতিবারই ঋষভের বীরু-স্টাইল ব্যাটিংয়ের প্রথম পরীক্ষা। যখন ভারত ‘এ’-র বিরুদ্ধে ব্রেবোর্নে ইংল্যান্ড দ্বিতীয় এক দিনের ওয়ার্ম আপ ম্যাচে নামবে। অজিঙ্ক রাহানের নেতৃত্বাধীন টিমে সুরেশ রায়না খেলবেন। আছেন ধোনির ঝা়ড়খণ্ডের তরুণ উইকেটকিপার ইশান কিষাণ। তা সত্ত্বেও ওয়াকিবহাল মনে করছে, এই ম্যাচে বিশেষজ্ঞদের বেশি নজর থাকবে ছোট্টখাট্টো চেহারার ঋষভের উপর। বিশেষ করে এ মরসুমে রঞ্জিতে মহারাষ্ট্র ম্যাচে বল পিছু রান তুলে ট্রিপল সেঞ্চুরি, ইশানদের বিরুদ্ধেও একটা ঝোড়ো সেঞ্চুরির পর কেউ কেউ ঋষভকেই সীমিত ওভারের ভারতীয় দলে ধোনির উত্তরাধিকার ভাবছেন। জাতীয় টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডে ঋষভের নির্বাচিত হওয়া যেন সেটারই প্রথম ধাপ!