ওজন কমানোর জন্য লো ক্যালরি ডায়েট মেনে চলতে হবে। এই মিথের পিছনে আমরা সকলেই ছুটি। কিন্তু লো ক্যালরি ডায়েট ঠিক কাকে বলে? ঠিক কতটা ক্যালরি আমাদের প্রয়োজন প্রতি দিন? তা হলে জেনে রাখুন এর কোনও নির্দিষ্ট হিসেব নেই। বেশ কিছু বিষয়ের ওপর নির্ভর করে দৈনন্দিন ক্যালরির পরিমাণ।

বিএমআর (বেসাল মেটাবলিক রেট)

বিশ্রামে থাকাকালীন আপনার শরীর যে পরিমাণ এনার্জি বার্ন করতে পারে। প্রতি দিন আমাদের শরীর ৬০-৭৫% এনার্জি বিশ্রামে থাকাকালীন বার্ন করে। বিভিন্ন শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়া বজায় রাখার জন্য যে পরিমাণ ক্যালরি বার্ন হয় তা বিএমআর-এর হিসেব দেয়।

মহিলাদের ক্ষেত্রে এই হিসেব: ওজন (কেজি) x ২২

পুরুষদের ক্ষেত্রে: ওজন (কেজি) x ২৪

পিএএল (ফিজিক্যাল অ্যাক্টিভিটি লেভেল)

যত বেশি এক্সারসাইজ করবেন, আপনার শরীরের তত বেশি ক্যালরি প্রয়োজন হবে। আমাদের দৈনন্দিন

কায়িক পরিশ্রমের হিসেব হল পিএএল। আর সেই সঙ্গেই হিসেব দেয় ঠিক কতটা এনার্জি খাবার মাধ্যমে আমাদের শরীরে প্রয়োজন।
সারাদিনের এনার্জি ক্ষয়কে বেসাল মেটাবলিক রেট দিয়ে ভাগ করে যে সংখ্যা পাওয়া যায় তা হল পিএএল।

টিইআর (টোটাল এনার্জি রিকোয়্যারমেন্ট)

সারা দিন যে পরিমাণ এনার্জি প্রয়োজন হয়, তা পুরণের জন্য যে পরিমাণ ক্যালরি আমাদের খাওয়া প্রয়োজন তাকে বলা হয় টোটাল এনার্জি রিকোয়্যারমেন্ট। বেসাল মেটাবলিক রেট ও ফিজিক্যাল অ্যাক্টিভিটি লেভেল গুণ করে পাওয়া যায় টিইআর বা টোটাল এনার্জি রিকোয়্যারমেন্ট।

এনার্জি ইনটেক/আউটপুট রেশিও

নিজের ফিটনেস গোল সেট করুন। আপনি ওজন বাড়াতে চান, ওজন ধরে রাখতে চান বা ওজন কমাতে চান সেই অনুযায়ী নিজের টিইআর সেট করুন। যদি বর্তমানের ওজনই ধরে রাখতে চান তাহলে এনার্জি ব্যালান্স করার দিকে মন দিন। সে ক্ষেত্রে আপনার এনার্জি ইনটেক ও এনার্জি আউটপুট সমান হতে হবে। যদি ওজন বাড়াতে চান তাহলে এনার্জি ইনটেক হতে হবে এনার্জি আউটপুটের থেকে বেশি। যদি ওজন কমাতে চান তাহলে এনার্জি আউটপুট এনার্জি ইনটেকের থেকে বেশি হতে হবে।

আরও পড়ুন: হাঁস না মুরগি, কার ডিম বেশি পুষ্টিকর?