নতুন বছরে শিব্রাম চক্কোত্তিই সোশ্যাল মিডিয়ার হিরো। তাঁর লেখা “ বহু বছরের কঠিন পরিশ্রমের পর আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি নতুন বছর, নতুন বছর বলে খুব হইচই করার কিস্যু নেই। যখনই কোনও নতুন বছর এসেছে, এক বছরের বেশি টেকেনি।’’ মজার কথা নিঃসন্দেহে, কিন্তু খাঁটি কথা। আসলে রোজকার একঘেয়ে জীবনকে আনন্দ মুখর করে তুলতেই নববর্ষের আনন্দ পালন। আর অনুষ্ঠানের প্রধান আকর্ষণ যে চর্বচোষ্য খাওয়া সে কথা বলাই বাহুল্য। নতুন বছরে দ্য ওয়াল রেস্তরাঁয় ডাক ফেস্টিভ্যাল চলছে, চলবে আরও কয়েকটা দিন। পিকিং ডাকের কিছু স্বাদু রেসিপি শেয়ার করলেন রেস্তরাঁর কর্ণধার শেফ সুশান্ত সেনগুপ্ত।

কসমোপলিটন

ক্র্যানবেরি জুসের মিষ্টতার সঙ্গে অরেঞ্জ লিকারের মিশেল। সঙ্গে আছে বিদেশি ভদকা। কাট গ্লাসে মৃদু লালচে আভার কসমোপোলিটনে চুমুক দিলেই মনটা ফুরফুরে হয়ে উঠবে। এমনই সিম্পল অথচ অসাধারণ স্বাদের মেলা ককটেলের সম্ভার আছে এশিয়ান ক্যুইজিনের অন্যতম ঠিকানা দ্য ওয়ালে।

আরও পড়ুন: আমাজন অভিযান সেরে টলি টেলসে

ক্রিস্পি ডাক উইথ চিলি প্লাম সস

কুলের চাটনির জব্বর টক মিষ্টি স্বাদ আর ভাজা পাঁচ ফোড়নের অসাধারণ সুগন্ধ ছোটবেলার ঠাম্মার ভাঁড়ারের কথা মনে করিয়ে দেয়। এখানেই শেষ নয়, চমক আছে আরও। সুসজ্জিত প্লেট থেকে মাংসের টুকরোয় কামড় দিলে মনটা খুশিতে ভরে উঠবে। স্থানীয় বাজারের হাঁসের মাংসর সঙ্গে এর কোনও তুলনাই চলে না। এ যে খোদ চিন দেশের পিকিং ডাক। হাড় ছাড়া নরম মাংসের পরতে পরতে জড়িয়ে আছে রসুন, ডার্ক সয়া সস, কাশ্মীরি লঙ্কার অভিনব স্বাদ। পাঁচ ফোড়নের সঙ্গে মিলে মিশে চিনে আর বাঙালি মশলার যুগলবন্দী পিকিং ডাকের স্বাদে এক অন্য মাত্রা এনে দিয়েছে।

উপকরণ

একটি গোটা পিকিং ডাক: ১.৮ কেজি

প্লাম সস: ১০০ গ্রাম (টোপা কুল, গুড় ও পাঁচ ফোড়ন ভাজা দিয়ে তৈরি করে নিতে হবে)

পক চয়: ১০০ গ্রাম

লাল লঙ্কা: ৩০ গ্রাম

ব্রথ পাউডার: ২০ গ্রাম

কর্ন ফ্লাওয়ার: ২০০ গ্রাম

লাইট সয়া: ২ টেবিল চামচ

পাঁচ ফোড়ন রোস্ট করে গুঁড়ো করা: ৫০ গ্রাম

ডার্ক সয়া সস: ১০০ মিলি লিটার

রসুন: মিহি করে কুচি করা: ৫০ গ্রাম

কাশ্মীরি লঙ্কা গুঁড়ো: ৫০ গ্রাম

মধু: ৫০ গ্রাম

খেজুর গুড়: ৪ চামচ

নুন: স্বাদ অনুযায়ী

ভাজার জন্যে সাদা তেল

প্রণালী: পিকিং ডাক ভাল করে ছাড়িয়ে ধুয়ে টাঙিয়ে রাখুন ঘন্টা দুয়েক। এরপর হাঁসের মাংস রোস্টের জন্যে ম্যারিনেশন করতে হবে। পাঁচ ফোড়ন, ডার্ক সয়া সস, নুন, মধু, লঙ্কা গুঁড়ো মাখিয়ে ঘন্টা দুয়েক রেখে দিতে হবে। এরপর দেড় ঘন্টা ১৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াস টেম্পারেচারে রোস্ট করতে হবে। রোস্ট করার পর হাড় ছাড়িয়ে চার ভাগ করে কর্ন ফ্লাওয়ার মাখিয়ে ডিপ ফ্রাই করে নিতে হবে।

এ বার টোপা কুল গুড়ে সামান্য নুন দিয়ে ফুটিয়ে ঘন করে নিন। ছেঁকে নিয়ে আবার ফুটিয়ে সামান্য কর্ন ফ্লাওয়ার দিয়ে ঘন করে ভাজা পাঁচ ফোড়ন গুঁড়ো ছড়িয়ে দিন। ফ্রাইং প্যানে সামান্য তেল দিয়ে রসুন কুচি ফোড়ন দিয়ে ভাজা মাংস দিয়ে নেড়েচেড়ে প্লাম সস ঢেলে স্যালাড সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

আরও পড়ুন: ভিন্ন স্বাদে মিষ্টিমুখ

ডাক অ্যাসর্টেড পেপার

কাঁচা লঙ্কা আর গোল মরিচের ঝালের সঙ্গে ওয়াইনের মিশেল। সঙ্গে লাল, সবুজ আর হলুদ বেল পেপারের স্বাদু উপস্থিতি পিকিং ডাকের মাংসকে এক অনবদ্য স্বাদ এনে দিয়েছে। স্রেফ হাত রুটি বা সাদা ভাতের সঙ্গে দিব্য জমে যাবে। অবশ্য শুধু মুখে খেতেও মজা। চেষ্টা করলে বাড়িতেও বানিয়ে নিতে পারেন।

উপকরণ

পিকিং ডাক: ১ কেজি

লাল, হলুদ ও সবুজ ক্যাপসিকাম: ১টি করে

পেঁয়াজ পাতার সাদা অংশ: মিহি করে কুচি করা – ৫০ গ্রাম

সেলারি: ৫০ গ্রাম

পেঁয়াজ কুচি: ২০ গ্রাম

রসুন কুচি: ২০ গ্রাম

গোলমরিচ ক্রাশ করা: ২০ গ্রাম

অয়েস্টার সস: ১০০ মিলি

চিনি: ২০ গ্রাম

ভিনিগার: ১০ মিলি

ডার্ক সস: ৩০ মিলি

ব্রথ পাউডার: ৩০ গ্রাম

ওয়াইন: ২০ মিলি

সাদা তেল: ৫০ গ্রাম

কর্ন ফ্লাওয়ার: ১৫০ গ্রাম

প্রণালী: আগের মতোই মাংস ধুয়ে ঘন্টা খানেক জল ঝরিয়ে সব মশলা দিয়ে ম্যারিনেট করে রাখতে হবে ঘন্টা দুয়েক। এরপর রোস্ট করে হাড় ছাড়িয়ে রাখুন। কর্ন ফ্লাওয়ার মাখিয়ে ডিপ ফ্রাই করে নিন। বাকি তেলে রসুন ও পেঁয়াজ কুচি দিয়ে সামান্য নেড়েচেড়ে ব্রথ পাউডার, ডার্ক সস, অয়েস্টার সস, ভিনিগার, চিনি, গোলমরিচ গুঁড়ো সব একসঙ্গে মিশিয়ে অল্প আঁচে মিনিট দশেক নাড়াচাড়া করুন। এরপর মাংস দিয়ে ভাল করে নেড়ে নিয়ে পেঁয়াজ পাতা ও বেল পেপার কুচনো মিশিয়ে এক মিনিট নেড়ে নামিয়ে গরমা গরম পরিবেশন করুন।

‘এই ধরনের খবর আপনার ইনবক্সে সরাসরি পেতে এখানে ক্লিক করুন’

ডেজার্ট সাংখ্যা

হাঁসের ডিম মানেই গরগরে ডালনা এমন একটা ধারণাকে নস্যাৎ করে দিয়েছে ডিম দিয়ে বানানো এক অসাধারণ স্বাদু ডেজার্ট। নারকেল আর হাঁসের ডিমের সঙ্গে খাঁটি গাওয়া ঘিয়ের মিশেল এই অভিনব মিষ্টিকে এক অসাধারণ স্বাদ এনে দিয়েছে। তৈরি করা মোটেও কঠিন নয়।

উপকরণ

হাঁসের ডিম: ১টি

রোস্ট করা নারকেল কোরা: ১ টেবল চামচ

তাল মিছরি: ২০০ গ্রাম

নারকেল পাউডার: ২০০ গ্রাম

নারকেল দুধ: ১০০ গ্রাম

গাওয়া ঘি: ২০ মিলি

মাখন: ১০ গ্রাম

টাটকা নারকেল কোরা: ২ চামচ

প্রণালী: হাঁসের ডিমের সঙ্গে তাল মিছরি গুঁড়ো করে মিশিয়ে নিন। নারকেল পাউডার দিয়ে মিশিয়ে ঘি ও নারকেলের দুধ মিশিয়ে ভাল করে স্মুদ ব্যাটার তৈরি করে নিন। এ বারে একটা টিফিন বক্সে মাখন দিয়ে ব্রাশ করে নিয়ে এই ব্যাটার ঢেলে স্টিমে বসিয়ে রাখুন ৪০ মিনিট। নামিয়ে ১০ মিনিট পর ঠান্ডা হলে সামান্য গাওয়া ঘি ও টাটকা নারকেল কোরা ছড়িয়ে কেটে কেটে পরিবেশন করুন।