মায়ের আঁচল ছেড়ে বেরোনর বয়স হয়নি, তার আগেই মা হতে হল ১২ বছরের এক ধর্ষিতা বালিকাকে!  গত শনিবার লখনউয়ের এক সরকারি হাসপাতালে পুত্র সন্তানের জন্য দিয়েছে ওই নাবালিকা। আর তার পরেই সদ্যোজাতকে গ্রহণ করতে অস্বীকার করল ওই নাবালিকার পরিবার।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, নাবালিকা ও সদ্যোজাত দু’জনের শারীরিক অবস্থা এখন স্থিতিশীল।  চিকিত্সার জন্য হাসপাতালে একটি মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়েছিল। হাসপাতালের সুপার সরিতা সাক্সেনা জানিয়েছেন, সদ্যোজাতর ওজন ২ কেজি ৩০০ গ্রাম। শনিবার সন্ধ্যা সাতটা নাগাদ স্বাভাবিক ভাবেই সন্তান প্রসব করে ওই নাবালিকা। এই মুহূর্তে আইসিইউ-এ রাখা হয়েছে বাচ্চাটিকে। তার মাকে রাখা হয়েছে অন্য ঘরে।

তবে, সন্তান জন্মানের পরই তাকে নিতে অস্বীকার করেছে ওই পরিবার। নাবালিকার মা ‘টাইমস অব ইন্ডিয়া’কে বলেন, ‘‘আমরা খুবই গরিব। ওই শিশু সন্তানটিকে লালন-পালন করার সামর্থ আমাদের নেই।’’ পাশাপাশি,  শিশুটির দায়িত্ব নেওয়ার জন্য সরকার বা কোনও অসরকারি সংগঠনের এগিয়ে আসা উচিত বলে মন্তব্য করেছেন নাবালিকার মা।

বেঙ্গালুরুর ইন্দিরানগর এলাকার একটি বাড়িতে ভাড়া থাকত ওই পরিবারটি। বছর কয়েক আগে মারা যান মেয়েটির বাবা। মা অসুস্থ। পরিবারের একমাত্র রোজগেরে ওই নাবালিকার বড় ভাই। তিনি কারখানায় শ্রমিকের কাজ করেন।

আরও পড়ুন: বিরলতম রক্ত দান করেই আনন্দ পান আদিত্য

অভিযোগ, এক প্রতিবেশী ওই নাবালিকাকে  ধর্ষণ করে। মাস কয়েক আগে ঘটনাটি ঘটলেও তা সামনে আসে গত বছরের অগস্ট মাসে। যখন মেয়েটির পেটে প্রবল ব্যথা হয়। চিকিৎসকদের কাছে নিয়ে গেলে জানা যায় মেয়েটি গর্ভবতী। কিন্তু, অবস্থা এমনই ছিল তখন গর্ভপাত কোনও ভাবেই সম্ভব ছিল না।

আরও পড়ুন: হাতে হেঁচকা টান, গাড়ি ছুটল তরুণীকে নিয়ে

বিষয়টি সামনে আসার পর প্রতিবেশী এক যুবকের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করে মেয়েটির পরিবার। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত ২৬ অগস্ট অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে পকসো বা প্রোটেকশন অব চিলড্রেন ফ্রম সেক্সুয়াল অফেন্সেস আইনে মামলা দায়ের হয়েছে।