সেনা গোয়েন্দাদের কাছ থেকে খবর পেয়ে মহারাষ্ট্রের লাতুরে দু’টি বেআইনি টেলিফোন এক্সচেঞ্জ ভেঙে দিল পুলিশ। পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআইয়ের চরেরা ওই এক্সচেঞ্জগুলি ব্যবহার করত বলে ধারণা গোয়েন্দাদের। দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, বিদেশ থেকে ‘ভিওআইপি’ (ভয়েস ওভার ইন্টারনেট টেলিফোনি) ব্যবস্থার মাধ্যমে আসা ফোনে কথোপকথন লাতুরে কোথাও বেআইনি ভাবে লোকাল ‘ভয়েস কল’-এ পরিবর্তন করা হচ্ছে বলে জানতে পারেন সেনা গোয়েন্দারা। এই ব্যবস্থায় ওই কথোপকথনের আসল উৎস যে বিদেশ তা প্রাথমিক ভাবে ঢাকা দেওয়া যায়। আইএসআই চরেরাই এ ভাবে কথাবার্তা বলছে বলে মহারাষ্ট্র পুলিশকে জানায় সামরিক গোয়েন্দা সংস্থা। যৌথ তদন্তে নামে মহারাষ্ট্র পুলিশের সন্ত্রাস-দমন শাখা, লাতুর জেলা পুলিশ ও টেলিকম দফতর। প্রথমে লাতুরে এক যুবকের বাড়িতে হানা দিয়ে ৯৬টি সিম কার্ড ও কম্পিউটার আটক করা হয়। আটক হয়েছে বিদেশ থেকে আসা ‘ভিওআইপি’ কলকে স্থানীয় ‘ভয়েস’ কলে পরিবর্তন করার যন্ত্রও। এর পরে আরও দু’জায়গায় হানা দিয়ে আরও যন্ত্রপাতি উদ্ধার হয়। ধৃত দু’জনকে জেরার ভিত্তিতে আরও কয়েক জনের খোঁজ চলছে।  পাঁচ মাস ধরে ওই দু’টি বেআইনি টেলিফোন এক্সচেঞ্জ চলছে। তাতে সরকারি কোষাগারের প্রায় ১৫ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।