রাস্তার নাম ছিল ‘তুরুথি স্ট্রিট’। গত মাসে স্থানীয় যুবকেরা নাম বদলে দিয়ে করেছে ‘গাজা স্ট্রিট’।

আর তাতেই বিতর্কের কেন্দ্র উত্তর কেরলের ‘অখ্যাত’ কাসারাগোড জেলা। পুরো এলাকাটাই এখন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দাদের নজরে। যদিও স্থানীয়রা বলছেন এটা সাধারণ বিষয়। মাঝেমধ্যেই কাসারাগোডে এমন ভাবে বহু রাস্তার নাম পরিবর্তন করা হয়। অতীতেও একাধিক বার এমনটাই ঘটেছে।

নাম বদলে এত বিতর্ক কেন? স্থানীয়দের কথা মানতে রাজি নন কেন গোয়েন্দারা? কারণটা গোয়েন্দা সংস্থার একটি রিপোর্ট। যাতে বলা হয়েছে, কেরল থেকে গত এক বছরে ২১ জন যুবক নিখোঁজ হয়। যাঁদের বেশির ভাগই এই নতুন ‘গাজা’ স্ট্রিটের কাছাকাছি পাদানে এলাকার বাসিন্দা। গোয়েন্দাদের অনুমান, নিখোঁজ যুবকরা জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট-এ (আইএস) যোগ দিয়েছে। আইএস-এর সঙ্গে রাস্তার নামকরণের কোনও যোগ আছে কি না, সে বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন গোয়েন্দারা। যদিও বিষয়টি নিয়ে কেরল সরকারের তরফে কোনও মন্তব্য করা হয়নি।

আরও পড়ুন: এই হিরে ব্যবসায়ী এখন ২ হাজার মেয়ের বাবা

গত মাসে নতুন গাজা স্ট্রিট-এর উদ্বোধন করেন কাসারাগোড জেলা পঞ্চায়েতের প্রেসিডেন্ট এজিসি বশির। কেন এমন নাম পরিবর্তন, তার সদুত্তর দিতে পারেননি তিনিও। বশিরের সাফাই, রাস্তাটি উদ্বোধন করার কথা ছিল না তাঁর, শেষ মুহূর্তে আসতে হয়েছিল। রাস্তা সংস্কারের কাজ হয়েছিল পুরসভার টাকাতেই। উত্তর নেই তাদের কাছেও। পুরসভার চেয়ারপার্সন বিফতিমা ইব্রাহিমের দাবি, এ বিষয়ে তাঁদের কাছে কোনও খবর নেই।