এক ভয়াবহ পথ দুর্ঘটনায় অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর স্ত্রী যশোদাবেন।

বুধবার সকাল দশটা নাগাদ রাজস্থানের চিতোরগড়-কোটার রাস্তায় যশোদাবেনের গাড়ির সঙ্গে একটি ট্রাকের সংঘর্ষ হয়। ইনোভা মডেলের ওই গাড়িটিতে সে সময় মোট সাত জন ছিলেন। যশোদার আঘাত বেশি নয়। কিন্তু তাঁর এক আত্মীয় বসন্ত ভাই মোদী (৬৭) মারা গিয়েছেন। বিমলা মোদী নামে এক মহিলা, পাঁচ বছরের একটি মেয়ে এবং যশোদার বন্দুকধারী রক্ষী আহত হন।

প্রাথমিক ভাবে আরোহীদের সকলকেই চিতোরগড় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। বসন্ত সেখানেই মারা যান। পরে বিমলা এবং তাঁদের রক্ষীকে উদয়পুর হাসপাতালে রেফার করা হয় বলে পুলিশ সূত্রে খবর।

সাবডিভিশনাল ম্যাজিস্ট্রেট সুরেশ কৌশিক জানান, প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী যশোদার আঘাত খুব বেশি নয়। প্রাথমিক চিকিৎসার পরে শিশুটিকেও ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

৬৬ বছর বয়সি যশোদাবেনের সঙ্গে নরেন্দ্র মোদীর বিয়ে হয়েছিল গুজরাতের ভাডনগরে থাকতেই। অল্প দিন পরেই মোদী সংসারত্যাগী হন। ২০১৪ সালের আগে তিনি নিজের বিয়ের কথা কখনও প্রকাশ্যে আনেননি। অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষিকা যশোদা অবশ্য নিজেকে এখনও মোদীর স্ত্রী বলেই পরিচয় দেন।

এ দিন কোটায় একটি অনুষ্ঠান শেষে যশোদারা চিতোর আসছিলেন। চিতোর থেকে ৫৫ কিলোমিটার দূরে দুর্ঘটনাটি ঘটে। গাড়িটি পুরো দুমড়ে গিয়েছে। অজ্ঞাতপরিচয় ট্রাকচালকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করছে পুলিশ। রাজস্থানের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী, কংগ্রেস নেতা অশোক গহলৌত টুইট করে এই দুর্ঘটনায় তাঁর শোক জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী অবশ্য এখনও নীরব।