পুরনো পাঁচশো এবং হাজার টাকার নোট আর বদল করার সুযোগ পাওয়া যাবে না। সোমবার কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে এই খবর জানানো হল। এ দিন শীর্ষ আদালতে এক হলফনামা দিয়ে এই সিদ্ধান্তের কথা জানায় কেন্দ্র। পাশাপাশি, কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে দাবি করা হয়েছে, নোট বাতিলের পরে দেশে সাময়িক সমস্যা হলেও বর্তমানে পরিস্থিতি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

আরও পড়ুন: জমা কত নোট, প্রশ্ন এড়িয়েই গেলেন উর্জিত

নোট বাতিলের পরে পরিস্থিতি কী দাঁড়াল, তা বিশ্লেষণ করতে বীরাপ্পা মইলির নেতৃত্বাধীন অর্থ মন্ত্রকের সংসদীয় কমিটি গত সপ্তাহেই রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর উর্জিত পটেলকে তলব করেছিল। কমিটির প্রশ্নের উত্তরে গভর্নর জানিয়েছিলেন, নোট বাতিলের পরে ফেরত আসা পুরনো ৫০০-১০০০ টাকার নোট গোনার কাজ এখনও শেষ হয়নি। কাজেই কত নোট ফেরত এসেছে, তা বলা এখনই সম্ভব নয়। তিনি বলেছিলেন, ‘‘সপ্তাহে ছ’দিন আরবিআই কর্মীরা কাজ করেছেন। আরও নোট গোনার যন্ত্র দরকার। তার বরাতও দেওয়া হয়েছে।’’ কিন্তু কবে গোনা শেষ হবে, তারও সময়সীমা দিতে চাননি উর্জিত। তাঁর যুক্তি ছিল, নেপালে যে-সব বাতিল নোট ছিল, সে গুলি এখনও ফেরত আসেনি। এ ছাড়া সমবায় ব্যাঙ্ক ও ডাকঘরে বদলে দেওয়া সব নোট এখনও রিজার্ভ ব্যাঙ্কের ঘরে জমা পড়েনি।