‘বেটি বাচাও, বেটি পড়াও’-এর একটি পোস্টারকে কেন্দ্র করে মুখ পুড়ল জম্মু ও কাশ্মীর সরকারের। মেয়েদের শিক্ষার প্রসার উপলক্ষে ওই পোস্টারে দেশের খ্যাতনামা মহিলাদের পাশাপাশি স্থান পেল উপত্যকার উপত্যকার বিচ্ছিন্নতাবাদী নেত্রী আসিয়া আন্দরাবির ছবিও। ঘটনা নজরে আসার পরই সংশ্লিষ্ট ব্লক আধিকারিককে পদ থেকে বরখাস্ত করেছে প্রশাসন। তবে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করলেও এই ঘটনায় তুমুল ঝড় উঠেছে রাজ্যর প্রশাসনের অন্দরমহলে।

রাজ্য প্রশাসন সূত্রে খবর, দক্ষিণ কাশ্মীরের কোকেরনাগ এলাকায় মেয়েদের শিক্ষার প্রসারের উদ্দেশ্যে একটি অনুষ্ঠানে একটি পোস্টারের উদ্বোধন করা হয়েছিল। তাতে নানা ক্ষেত্রে কৃতিত্বের অধিকারী মহিলাদের ছবি ছিল। ইন্দিরা গাঁধী, মাদার টেরেসা, টেনিস তারকা সানিয়া মির্জা, লতা মঙ্গেশকর, মহাকাশচারী কল্পনা চাওলা, পুদুচেরির রাজ্যপাল কিরণ বেদী থেকে শুরু করে তাতে ছিল রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতির ছবিও। তাঁদের পাশাপাশি ছিল দুখতরন-ই-মিলাত নামেই একটি সংগঠনের প্রধান আসিয়া আন্দরাবির ছবিও।

আরও পড়ুন

জোর করে ভক্তদের নির্বীজকরণ: সিবিআই জেরার মুখে রাম রহিম

সম্পত্তি ৫০০ কোটি টাকার! খুনি অখিলেশকে ধরল পুলিশ

উল্টে গেল রায়, আরুষি হত্যাকাণ্ডে বেকসুর খালাস তলোয়ার দম্পতি

কর্নেলের স্ত্রীর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক, ব্রিগেডিয়ারকে শাস্তি দিল সেনা

বর্তমানে জনসুরক্ষা আইনের আওতায় ধৃত আন্দরাবি। পাকিস্তানের সঙ্গে জম্মু ও কাশ্মীরের সংযুক্তি নিয়ে বহু বার সরব হয়েছেন তিনি। তাঁর বিরুদ্ধে বহু মামলাও ঝুলছে। এর মধ্যে রয়েছে, ১৪ অগস্ট এবং ২৩ মার্চ যথাক্রমে পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবসে ও জাতীয় দিবসে সে দেশের পতাকা উত্তোলন করার মতো অভিযোগও।

পোস্টার-কাণ্ডের পরই অনন্তনাগের ব্রেঙ্গ ব্লকের শিশু উন্নয়ন প্রকল্পের আধিকারিক (সিডিপিও)-কে বরখাস্ত করেছে রাজ্য প্রশাসন।

অনন্তনাগের ডেপুটি পুলিশ কমিশনার মহম্মদ ইউনুস মালিক বলেন, “সিডিপিও শামিমাকে তাঁর পদ থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। গোটা বিষয়ে একটি তদন্ত কমিশনও গঠন করা হবে।”