ইংরেজি নববর্ষের পরের দিন সকাল। তিন বন্ধু মিলে গিয়েছিল একটি ওয়াটার পার্কে। দুই কিশোরী এবং এক কিশোর। উদ্দেশ্য, নিছকই ঘুরে বেড়ানো। কিন্তু, সেই ঘুরে বেড়ানোই কাল হল তাদের। ওই কিশোরীদের ফিরতে হল বেধড়ক মার খেয়ে। শেষে পুলিশ এসে তাদের উদ্ধার করে।

ঘটনাস্থল মেঙ্গালুরু। ওই কিশোরীদের মারধর করার অভিযোগ যে যুবকদের বিরুদ্ধে, পুলিশের দাবি, তারা সকলেই কট্টরপন্থী একটি সংগঠনের সদস্য। এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত দু’জনকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, মেঙ্গালুরুর কাছে পিলিকুলায় একটি ওয়াটার থিম পার্কে ঘুরতে গিয়েছিল তিন কিশোর-কিশোরী। স্থানীয় একটি কলেজে তিন জনেই একাদশ শ্রেণিতে পড়ে। ধর্মীয় পরিচয়ে কিশোরটি মুসলমান। তার অন্য দুই বন্ধু হিন্দু। অভিযোগ, ধর্মীয় কারণেই ওই কট্টরপন্থীরা কিশোরীদের মারধর করে।

আরও পড়ুন
হাতে-গরম চিকিৎসক: চিত্রশিল্পী হঠাৎ করেই যেন নৃত্যশিল্পীর ভূমিকায়!

ওই দিন সকালে তিন পড়ুয়া মিলে ওয়াটার পার্কে ঘুরতে যায়। কিছু ক্ষণের মধ্যেই এক দল যুবক পার্কে ঢুকে আচমকাই ওই দুই কিশোরীর উপর হামলা চালায়। তাদের বাবা-মাকে ডেকে আনার জন্যও জবরদস্তি করা হয় বলে অভিযোগ। এর পরেই পার্কে ঘুরতে আসা কোনও ব্যক্তি স্থানীয় পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ এসে ওই যুবকদের হাত থেকে উদ্ধার করে তিন জনকে। তারা যখন পুলিশি ঘেরাটোপে পার্ক ছাড়ছে, সেই সময়েও এক কিশোরীর মাথায় সপাটে চড় মারতে দেখা যায় এক যুবককে। ঘটনার সময় এক জন প্রত্যক্ষদর্শী গোটা ঘটনার ভিডিও রেকর্ড করে মোবাইলে। সেই ফুটেজ দেখে দু’জনকে আটক করা হয়েছে।

আরও পড়ুন
মহারাষ্ট্র উত্তাল দলিত বিক্ষোভে, হিংসায় বিপর্যস্ত মুম্বই-পুণে-ঠাণে

মেঙ্গালুরু পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, কেন মারধর করা হল, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।