স্কুলে যাওয়ার পথে ছয় বছরের ভাইঝিকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে খুনের অভিযোগ উঠেছে তারই কাকার বিরুদ্ধে। তেলঙ্গানার ঘটনা।

আরও পড়ুন: ফেরার থাকার সময়ে মুম্বই এসেছিল সাজ্জাদ

প্রতিবেশীরা জানান, বাড়ি থেকে খুব একটা দূরে নয় শিশুটির স্কুল। স্কুলের টিফিনের সময় খাবার খেতে বাড়িতে এসেছিল সে। খাবার খেয়েই সে আবার স্কুলের দিকে রওনা দেয়। সন্ধ্যা হয়ে যাওয়ায় মেয়ে বাড়িতে ফিরছে না দেখে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন তার মা। পরে পুলিশে একটা নিখোঁজ ডায়েরিও করেন তিনি।

আরও পড়ুন: দীপাবলিতেই ত্রিপুরায় রাজধানী এক্সপ্রেস

অভিযোগ পেয়েই তদন্তে নামে পুলিশ। এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, শিশুটিকে শিব কুমার (২২) নামে এক যুবকের সঙ্গে দেখা গিয়েছিল। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, এই শিব কুমার সম্পর্কে মেয়েটির কাকা হয়। পুলিশ শিব কুমারের খোঁজ শুরু করে। প্রথমে তাকে আটক করে জেরা শুরু করে পুলিশ। জেরায় শিব কুমার পুলিশের কাছে ধর্ষণ ও খুনের কথা স্বীকার করে বলে জানা গিয়েছে। পুলিশ সূত্রে খবর, শিব কুমার শিশুটিকে মান্নাপুর গ্রামের একটি ফাঁকা খেতে নিয়ে যায়। সেখানে শিশুটিকে দু’বার ধর্ষণ করে কুয়োর মধ্যে ছুড়ে ফেলে দেয়। সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে তেলঙ্গানার সঙ্গারেড্ডি জেলা পুলিশের এক শীর্ষ আধিকারিক জানিয়েছেন, শিশুটিকে মান্নাপুর গ্রামে ধর্ষণ করে খুন করেছে অভিযুক্ত।  তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।