মহেন্দ্র সিংহ ধোনির ভবিষ্যৎ নিয়ে উত্তাল ভারতীয় ক্রিকেট। আর সবচেয়ে বেশি আলোড়ন রবি শাস্ত্রীর মন্তব্য নিয়ে। ধোনির পাশে দাঁড়িয়ে আনন্দবাজারে করা শাস্ত্রীর মন্তব্য নিয়ে রীতিমতো বিতর্ক সভা শুরু হয়ে গিয়েছে। কয়েক জন প্রাক্তন ক্রিকেটার প্রশ্ন তুলেছিলেন ধোনির দক্ষতা নিয়ে। তাঁদের মধ্যে ছিলেন ভি ভি এস লক্ষ্মণ এবং অজিত আগরকর। তাঁদের বক্তব্য ছিল, ধোনিকে আর টি-টোয়েন্টিতে খেলানো উচিত নয়।

প্রথমে বিরাট কোহালি পাশে দাঁড়ান ধোনির। ভারত অধিনায়ক বলেন, অহেতুক নিশানা করা হচ্ছে ধোনিকে। এর পর রবি শাস্ত্রী আনন্দবাজার-কে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে তোপ দাগেন। শাস্ত্রী বলেন, ‘‘কিছু ঈর্ষান্বিত লোক ধোনির পতন দেখতে চায়। এরা অপেক্ষায় রয়েছে কবে ধোনির দু’একটা বাজে ম্যাচ যাবে।’’ সেই সাক্ষাৎকারে শাস্ত্রী আরও বলেন, ‘‘খুব বেশি দিন হয়নি আমিও টিভি-তে বসতাম। টিভি-তে প্রশ্ন করা হয়, উত্তরও দিতে হয়। তবেই না শো চলবে।’’

আরও পড়ুন: শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজে বিশ্রাম দেওয়া হল হার্দিককে

আনন্দবাজার-কে বলা শাস্ত্রীর সেই আক্রমণাত্মক সব মন্তব্য সারা দেশের সংবাদমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে বৃহস্পতিবার রাত থেকে। তীব্র প্রতিক্রিয়াও শুরু হয়ে যায় ক্রিকেট ভক্তদের মধ্যে। বেশির ভাগ ভক্তই ধোনির পাশে দাঁড়িয়ে বলতে থাকেন, টেস্ট থেকে নিজেই সরে দাঁড়ানো এক কিংবদন্তি নিশ্চয়ই জানবেন কবে ওয়ান ডে থেকে সরতে হবে। টুইটারে আগরকর প্রশ্নের মুখে পড়েন ভক্তদের। আবার কয়েক জনে এমন কথাও বলেন যে, ধোনি যদি ভাল না খেলতে পারেন তাহলে সত্যিই তরুণ কাউকে সুযোগ দেওয়া হোক।

যদিও শাস্ত্রী বা কোহালির মনে এই মুহূর্তে নতুন কাউকে দেখার ইচ্ছা যে নেই, সেটা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। শাস্ত্রী বলেই দিয়েছেন, ধোনির গত এক বছরে ওয়ান ডে-তে গড় পঁয়ষট্টির উপরে। শ্রীলঙ্কাতে ম্যাচ জিতিয়েছেন। অস্ট্রেলিয়ায় বিরুদ্ধে দেশের মাঠে শেষ সিরিজেও ওয়ান ডে ম্যাচ জিতিয়েছেন। শাস্ত্রীর মতে, ‘‘যে যা-ই বলুক, আমরা জানি টিমের মধ্যে ধোনির স্থান কোথায়।’’