ঢাকে কাঠিপড়ে গিয়েছে ইন্ডিয়ান সুপার লিগের(আইএসএল)। ১৭ তারিখ কেরলে উদ্বোধনী ম্যাচে মুখোমুখি হবে আইএসএলের ইতিহাসের দুই ধারাবাহিক দল কেরালা ব্লাস্টার্স এবং অ্যাটলেটিকো দে কলকাতা। তার আগে শুক্রবার আইএসএল মিডিয়া ডে-তে লিগের সময় বাড়ায় খুশি দেখাল আইএসএলের দলগুলির কোচ এবং ফুটবলারদের।

এ দিনের সম্মেলনে মুম্বই সিটি এফসি-র কোচ বলেন, ‘‘আমার মনে হয় এই মরসুমে প্রস্তুতির জন্য, বিভিন্ন স্টাইলের ফুটবল ট্রাই করার জন্যও অনেকটা সময় পাওয়া যাবে। দীর্ঘ দিন ধরে কোনও লিগ চললে এক জন কোচ তার দলের প্লেয়ারদের ভাল করে চিনতে পারে এবং দলের স্বার্থে বিভিন্ন পরিকল্পনাও কাজে লাগাতে পারে।’’

আরও পড়ুন: ফের ধাক্কা খেলেন প্রফুল্ল, অবৈধ ছিল নির্বাচন, জানিয়ে দিল সুপ্রিম কোর্টও

আরও পড়ুন: ‘মুখ বন্ধ রাখুন! ধোনি পিএম হলে আপনি এমএলএ’

২০১৪-র পর ফের এক বার আসন্ন আইএসএল-এ খেলতে দেখা যাবে ব্রুনো পিনহিরোকে। দু’বছর পর আইএসএলে ফিরে আসার কারণ হিসেবে আইএসএলের সময় বাড়ানোকেই মূল কারণ হিসেবে ব্যাখ্যা করেন ব্রুনো।

তিনি বলেন, ‘‘টুর্নামেন্টটি দীর্ঘমেয়াদি হওয়াতেই আমি আইএসএলে ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। একটা দীর্ঘমেয়াদি লিগ সব সময়েই ভাল পারফর্ম করতে ফুটবলারদের সাহায্য করে। চোট থেকে ফিরে আসার জন্যও সময় পাওয়া যায়।’’

ট্রফিকে সামনে রেখে কোচেদের সেলফি। ছবি: আইএসএল সৌজন্য।

প্রায় একই কথা শোনা গেল চেন্নাইয়ান এফসি-র নতুন কোচ জন গ্রেগরির গলায়। তিনি বলেন, ‘‘গত বছরের সূচিতে চোখ বোলানোর সময় দেখছিলাম একটা সময় ছ’দিনের মধ্যে তিনটি ম্যাচ খেলতে হয়েছিল চেন্নাইয়ানকে। ফুটলারদের থেকে সেরাটা পাওয়ার জন্যএটা কখনওই সঠিক সূচি হতে পারে না। দীর্ঘমেয়াদি লিগ শুধু প্লেয়ারদেরই নয়, কোচেদের জন্যও অনেকটা সুবিধার। একে অন্যকে চিনতে-জানতে এটা প্রয়োজন।’’

আইএসএলের নতুন সূচিকে স্বাগত জানিয়েছেন ইয়ান হিউমও। হিউমের কথায়, আগে আইএসএল একটা টুর্নামেন্ট ছিল, এখন এটা একটা লিগে পরিণত হয়েছে।

ওয়েস ব্রাউন, দিমিটার বার্বাটোভ-দের আইএসএল খেলতে আসাটাই বুঝিয়ে দিচ্ছে লিগের গুরুত্ব কতটা বেড়েছে। সব মিলিয়ে আশা করা যায়, নতুন মোড়কে আইএসএল শুধু ভারতীয় ফুটবলপ্রেমীদেরই নয়, বিশ্বে ফুটবলপ্রেমীদেরও আগামী দিনে মাতিয়ে রাখবে।