বিশ্ব ফুটবলে এই মুহূর্তের সেরা সেনসেশন সে। তাঁকে নিয়ে টানাটানির অন্ত নেই। কখনও ম্যানচেস্টার সিটি তো কখনও বায়ার্ন মিউনিখ। খবরের শিরোনামেও সেই। সেই আমিনু মহম্মদ এই মুহূর্তে অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ খেলতে হাজির দিল্লিতে। কিন্তু ভারতের বাইরে তাকে নিয়ে টানাপড়েন চলছেই। যা খবর তাকে নেওয়ার ব্যপারে আগ্রহ দেখিয়েছে রিয়েল মাদ্রিদও। ভবিষ্যতের নেইমার ভাবা হচ্ছে ঘানার ওয়ান্ডার বয়কে। কারণ তার ড্রিবলিং স্কিল ও গোল করার ক্ষমতা। তাই দলবদলের মরসুমে তাকে ঘিরেই সব জল্পনা। তাকে নিয়ে টানাটানির শুরু এই বছরের প্রথম দিকে। যখন কাতারে আল কাস টুর্নামেন্ট খেলতে গিয়েছিল নিজের স্থানীয় ক্লাবের হয়ে। আর পিএসজির বিরুদ্ধে দুটো বিশ্বমানের গোলই নজর কেড়ে নিয়েছিল গোটা ফুটবল বিশ্বের।

আরও পড়ুন

প্রতি মাসের প্রথম বুধবার মালি দলের ড্রয়িংরুমে হাজির বলিউড

রিয়েল মাদ্রিদই হোক বা বায়ার্ন মিউনিখ সবাইকে ছাপিয়ে আমিনুর কাছে ২০ লক্ষ্য ইউরোর অফার রেখেছিল ম্যানচেস্টার সিটি। এই মুহূর্তে আমিনু খেলে স্থানীয় ওয়াফার হয়ে। আর ওয়াফা জানিয়ে দিয়েছে তারা আমিনুকে ছাড়ছে না। ও   দিকে  প্রায় চুক্তি পাকা করে বসে রয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। কিন্তু অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপের মধ্যে এই তারকা স্ট্যাটাস যাতে আমিনুর খেলায় প্রভাব না ফেলে সেই দিকেই নজর রাখছেন কোচ স্যামুয়েল ফাবিন। যদিও আমিনু ইতিমধ্যেই দু’সপ্তাহ কাটিয়ে এসেছে ম্যানচেস্টারে। দু’সপ্তাহের ট্রায়ালে সে এতটাই নজর কেড়েছে যে তাঁকে নিতে বিরাট অঙ্কের অফারও দিয়ে বসেছে আগুয়েরো, সিলভাদের ক্লাব। তাকে দলে নেওয়া কথাও ঘোষণা হয়ে গিয়েছে। আমিনু বিশ্বকাপ থেকে ফিরেই যদি ম্যান সিটিতে যোগ দেয় তা হলে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

  নিজের ক্লাবের হয়ে আমিনুর খেলার মুহূর্ত।

যা খবর অমিনুর বর্তমান ক্লাবের সঙ্গে বোঝাপড়াও সেরে ফেলেছে ম্যান সিটি। ঘানা শিবিরের অবশ্য এই নিয়ে মুখে কুলুপ। তাকে হয়তো স্পেশাল ট্যালেন্ট ভিসা দিয়েই নিয়ে যাওয়া হবে ইংল্যান্ডে। বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে কলম্বিয়ার বিরুদ্ধে ৮২ মিনিটেই তাকে তুল নিয়েছিলেন কোচ। ভাবা হচ্ছিল, তার এই স্টারডম তার খেলায় প্রভাব ফেলছে বলেই এই সিদ্ধান্ত। যদিও কোচ পরে বলেন, চোটের জন্য তুলে নিয়েছিলেন আমিনুকে। তাই দলের আসল প্লেয়ারকে নিয়ে কোনও ঝুঁকি নিতে চাননি তিনি। যদি সত্যিই আমিনুকে ওই টাকায় ম্যান সিটি পেয়ে যায় তা হলে সেটা ঘানা ফুটবলে ইতিহাস হবে। থেকে বড় অঙ্কের ট্রান্সফারের ইতিহাস। যদিও ওয়াফা এসসি এই খবরের সত্যতা স্বীকার করেনি। মানতে চাননি জাতীয় কোচ ফাবিনও। ফাবিন যতই লুকোনোর চেষ্টা করুক না কেন ফুটবল বিশ্বে এখন এটা একটা বড় খবর। আমিনুও কুলুপ এঁটেছেন মুখে। ম্যান সিটিতে খেলার যে সে নিয়েই ফেলেছে সেটা তার হাবেভাবে পরিষ্কার।